নিজস্ব প্রতিবেদক: কৌশলগত বিনিয়োগকারী ইস্যুতে টানা দর পতনে ভুগছে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার। কে হচ্ছে ডিএসই’র কৌশলগত বিনিয়োগকারী ? তা নিয়ে জ্বল্পনা-কল্পনার শেষ ছিল না।

কিন্তু অবশেষে গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ডিএসই’র কৌশলগত বিনিয়োগকারী হওয়ার অনুমোদন পেল চীনা জোট। এমন সুখবরের পরও টানা তৃতীয় কার্যদিবসে কমেছে সূচক ও লেনদেন।

তবে বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পতনে শেষ হয়েছে উভয় শেয়ারবাজারের লেনদেন। রবিবার (৬ মে) উভয় বাজারের প্রধান প্রধান সূচক কমেছে। আজকের দিন নিয়ে শেয়ারবাজার টানা তিন দিন পতনে রয়েছে।ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই ও সিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, আজ উভয় বাজারে সূচক কমলেও বেড়েছে টাকার পরিমাণে লেনদেন এবং হাত বদল হওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর।

আজ ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৪ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৫৬৯৪ পয়েন্টে। অপর সূচকগুলোর মধ্যে ডিএসই-৩০ সূচক ৮ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ২১১৯ পয়েন্টে। তবে শরিয়াহ সূচক ১ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩১৯ পয়েন্টে।

এদিন ডিএসইতে ৫৩১ কোটি ৬৭ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিন থেকে ৫৭ কোটি টাকা বেশি। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৪৭৪ কোটি টাকার। আজ ডিএসইতে হাত বদল হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে ১৭৫টির, কমেছে ১২৫টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৬টির দর।

অপর শেয়ারবাজার সিএসইর সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১৯ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৭৫৭৫ পয়েন্টে। অপর সূচকগুলোর মধ্যে সিএসই-৫০ সূচক ৭, সিএসই-৩০ সূচক ৮৩, সিএসসিএক্স ১১ ও সিএসআই ১ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১৩২১,১৫৮৭৭, ১০৬২৭ ও ১১৮১ পয়েন্টে।

এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে ১৩৫টির,কমেছে ৭৯টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ২১টির দর। সিএসইতে আজ ২২ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। আর আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ২২ কোটি ৫৫ লাখ টাকার।