গত কয়েকদিন থেকে আলোচনায় ছিলো রেমডেসিভির নামের একটি ওষুধ। করোনাভাইরাস চিকিৎসার মোড় ঘুরাতে পারে এই ওষুধ- এমন ধারণা দিয়েছিলেন চিকিৎসকরা। বেশ কয়েকজন রোগীকে প্রয়োগ করে ফল মেলে হাতেনাতে। চীনে চালানো ক্লিনিক্যাল পরীক্ষায় উতরাতে ব্যর্থ হলেও পরবর্তীতে আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ওষুধটিকে কার্যকর ঘোষণা করেন মার্কিন গবেষকরা। আশাবাদী হয়ে উঠেন খোদ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও। অপেক্ষা ছিলো অনুমোদনের। অবশেষে শনিবার মিললো ব্যবহারের অনুমতি। কোভিড-১৯ রোগীদের জরুরি চিকিৎসায় রেমডেসিভির ব্যবহারের অনুমতি দিলো মার্কিন খাদ্য ও ঔষধ প্রশাসন- এফডিএ। এই প্রথম করোনাভাইরাস চিকিৎসায় কোন ওষুধ অনুমোদন করা হলো।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, শুক্রবার খাদ্য ও ঔষধ প্রশাসন- এফডিএ রেমডেসিভিরকে ‘জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন’ দিয়েছে। ওভাল অফিসে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, স্বাস্থ্য ও মানবসেবাবিষয়ক মন্ত্রী অ্যালেক্স আজার, (এফডিএ) কমিশনার ড. স্টিফেন হান ও গিলিড সায়েন্সেস-এর সিইও’র মধ্যকার এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে জানিয়েছে দেশটির অপর একটি সংবাদমাধ্যম এবিসি নিউজ।

এফডিএকে দিয়ে জরুরি অনুমোদনের এই বিষয়টি সাধারণ ওষুধ অনুমোদনের মতো নয়। যখন ফেডারেল সরকার জনস্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে, বিকল্প উপায় না থাকলে এফডিএ জরুরি অবস্থা সমাধানের জন্য ওষুধ অনুমোদন করতে পারে। ইতিমধ্যে, প্রস্তুতকারক কোম্পানি রোগীদের জন্য ১৫ লাখ বোতল ওষুধ সরবরাহের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

ফেডারেল পরীক্ষায় দেখা গেছে রেমডেসিভির কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের দ্রুত সুস্থ হতে সাহায্য করে। নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, ১০৬৩ জন রোগীর উপর একটি পরীক্ষা চালানো হয়। যাদের রেমডেসিভির অথবা বিকল্প ওষুধ দেয়া হয়েছিল। যারা বিকল্প ওষুধ পেয়েছিলেন তাদের সুস্থ হতে যেখানে ১৫ দিন লেগেছিলো, সেখানে ১১ দিনেই সুস্থ হয়ে উঠেন রেমডেসিভির গ্রহণ করা রোগীরা।

এর আগে, গত ২৯ এপ্রিল (বুধবার) হোয়াইট হাউসে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে রেমডেসিভিরের কার্যকারিতার ‘সুস্পষ্ট প্রমাণ’ পাওয়ার কথা জানান যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অফ অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজ’-এর পরিচালক এবং রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বিশেষজ্ঞ ডা. অ্যান্থনি ফাউচি। স্বনামধন্য এই বিজ্ঞানী বলেন, আক্রান্তদের মধ্যে রেমডেসিভির গ্রহণকারীরা অন্যদের তুলনায় কম সময়ের মধ্যে সুস্থ হয়ে ওঠে। তবে এই ওষুধ মৃত্যুহার কমাতে ভূমিকা রাখে কিনা, তা এখনও প্রমাণিত নয়। এর কয়েকদিনের মাথায় জরুরি প্রয়োজনে ব্যবহারের অনুমোদন পেল ওষুধটি।

এখন পর্যন্ত ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল এবং যে রোগীদের মৃত্যু এড়ানোর কোনও উপায় নেই তাদের ক্ষেত্রে রেমডেসিভির ব্যবহার করা হয়েছে। এফডিএ-এর অনুমোদনের পর গুরুতর অসুস্থ রোগীদের ক্ষেত্রে এই ওষুধ ব্যবহারের সুযোগ সৃষ্টি হলো। অর্থাৎ, এখন থেকে মার্কিন চিকিৎসকরা হাসপাতালে চিকিৎসারত রোগীদের জরুরি প্রয়োজনে প্রেসক্রিপশনে রেমডেসিভিরের নাম লিখতে পারবেন।

বিজে/জেডআই