হ্যালো। আমি জিনের বাদশা বলছি। আমি আপনাদের ঘরের সোনা ও নগদ টাকা দিগুণ করে দেয়ার ক্ষমতা রাখি। এজন্য আমাকে বিকাশ নাম্বারে টাকা পাঠাতে হবে।

এভাবেই জিনের বাদশাহ নান্নু শাহ দীর্ঘদিন ধরে সিলেট, মৌলভীবাজার ও সুনামগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় অবস্থান করে সহযোগীদের মাধ্যমে গ্রামের সহজ সরল নারীদের মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে প্রতারণা করতো। তাদের কাছ থেকে তিনি বিকাশের মাধ্যমে বড় অংকের টাকা আদায় করতো। কিন্তু সোনা ও নগদ টাকা দ্বিগুণ হতো না। এভাবে একাধিক নারী ও পুরুষ প্রতারণার স্বীকার হয়ে সিলেট বিভাগের বিভিন্ন থানায় পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন জিনের বাদশাহ নান্নু শাহের বিরুদ্ধে। এর প্রেক্ষিতে পুলিশ তাকে নজরদারীতে রাখে।

পরে বুধবার দুপুরে মৌলভীবাজার শহরের কুসুমবাগ এলাকা থেকে মৌলভীবাজার মডেল থানার এসআই তোফাজ্জল হোসেন অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করেন।

আটককৃত কথিত জিনের বাদশাহ মো. লিটন মিয়া ওরফে নান্নু শাহ হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার মতোরাপুর গ্রামের সুরুক মিয়ার ছেলে।

খবর পেয়ে সিলেট শাহ পরান থানা অভিযোগকারী রওশন আরাকে নিয়ে এসে তাকে চিহ্নিত করে। এ ঘটনায় সিলেট শাহপরান থানায় জিনের বাদশাহর বিরুদ্ধে একটি মামলা করা হয়।

এ বিষয়ে মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি সোহেল আহম্মদ সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, আমি সিলেট কোতোয়ালি থানার দায়িত্বে থাকা অবস্থায় তার বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ আসে। বর্তমানে সিলেটের বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।