বিজনেস জার্নাল ডেস্ক: করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) সকালে দিল্লির এআইআইএমএস হাসপাতালে টিকার দ্বিতীয় ডোজ নেন তিনি। টিকা নেওয়ার পর টুইটারে দেওয়া এক বার্তায় করোনামুক্ত থাকতে সবাইকে টিকা নেওয়ার আহ্বান জানান মোদি।

গত ১ মার্চ করোনা টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদি। ভারতে টিকাদান কর্মসূচির দ্বিতীয় ধাপে টিকা নেন তিনি। সেসময় কেবল প্রবীণ নাগরিক ও ৪৫ বছরের বেশি বয়সীদের যাদের কোমর্বিডিটি রয়েছে তাদেরই টিকা দেওয়া হচ্ছিল। তবে গত ১ এপ্রিল থেকে ৪৫ বছরের বেশি বয়সী সবাইকে করোনার টিকা দেওয়া হচ্ছে।

টিকা নেওয়ার পর টুইটে নরেন্দ্র মোদি লিখেছেন, ‘এআইআইএমএস-এ করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছি। ভাইরাসকে পরাজিত করতে টিকা নেওয়া হলো একটি উপায়। আপনি যদি টিকা নেওয়ার যোগ্য হন তবে শিগগিরই আপনার ডোজটি নিয়ে নিন। রেজিস্টার করুন, http://CoWin.gov.in।’

অর্থনীতি ও শেয়ারবাজারের গুরুত্বপূর্ন সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন: বিজনেসজার্নালবিজনেসজার্নাল.বিডি 

ভারতজুড়ে করোনার সেকেন্ড ওয়েভ বা দ্বিতীয় ঢেউ চলছে। রাজ্যে-রাজ্যে ছড়াচ্ছে সংক্রমণ। লাগামহীন সংক্রমণে দিশেহারা দেশটির একাধিক রাজ্য। করোনা মোকাবিলায় দেশটিতে আপাতত দুটি টিকা দেওয়া হচ্ছে। অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকাটি উৎপাদন করছে পুনে’র সেরাম ইনস্টিটিউট। অন্যদিকে হায়দরাবাদের সংস্থা ভারত বায়োটেক ও আইসিএমআর যৌথভাবে উৎপাদন করছে কোভ্যাক্সিন। বর্তমানে দেশে এই দুটি টিকাই মানুষের মাঝে প্রয়োগ করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত ১৬ জানুয়ারি সারা ভারতজুড়ে একযোগে টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কর্মসূচির প্রথম ধাপে কেবল করোনা মোকাবিলায় সম্মুখ যোদ্ধা হিসেবে কাজ করা ব্যক্তিদের টিকা দেওয়া হয়।

তখন টিকা নেন চিকিৎসক, নার্সসহ অন্য স্বাস্থ্যকর্মী থেকে শুরু করে দেশের নিরাপত্তা বিভাগের সঙ্গে যুক্ত থাকা কর্মীরা। কর্মসূচির ২য় ধাপ থেকে টিকা দেওয়া হচ্ছে ৪৫ বছরের ওপরের সব মানুষকে। দেশজুড়ে টিকাদান কার্যক্রমে গতি বাড়াতে তৎপর কেন্দ্রীয় সরকার।

সূত্র: এনডিটিভি, টাইমস অব ইন্ডিয়া

ঢাকা/এনইউ

আরও পড়ুন:

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here