চাপের মুখে নয়, গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা অব্যাহত রাখতেই, সংলাপে বসছে আওয়ামী লীগ। কোনও শর্ত-দফা নয়, খোলামেলা পরিবেশেই সংলাপ হবে। ঐক্যফ্রন্টের সাত দফা এবং ১১ লক্ষ্য নিয়েও খোলামেলা আলোচনা হবে। বললেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ মঙ্গলবার সকালে সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, সংলাপে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কোন কোন দলের প্রতিনিধি এবং কতজন অংশ নেবেন, তা ঠিক করবেন ড. কামাল হোসেন।

তিনি বলেন, ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছেন ড. কামাল হোসেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমার সঙ্গে কেউ দেখা করতে চাইলে, তার দরজা আমার জন্য বন্ধ না।

সেতুমন্ত্রী বলেন, তারা সাত দফা দাবি ও ১১টি লক্ষ্য উল্লেখ করেছেন চিঠিতে। কিন্তু জানা থাকা দরকার, কতোগুলো বিষয় আছে আমাদের এখতিয়ারে নেই। কিছু বিষয় আছে সংবিধান সংশোধনের, কিছু আছে আইন-আদালতের, কিছু আছে নির্বাচন কমিশনের এখতিয়ারে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি মোস্তফা মহসিন মিন্টুর সঙ্গে বলেছি তারা কয়জন আসতে চান। তিনি বলেছেন ১৫ জন। আমি বলেছি, ১৫ জন কেন, চাইলে ২০-২৫ জনও আসতে পারেন।

তিনি বলেন, সংলাপে ঐক্যফ্রন্টের কতোজন থাকবেন সেটা নিয়ে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে কোনো বাধা নেই। মঙ্গলবার ঐক্যফ্রন্ট তালিকা পাঠাবে। সেটা দেখে আওয়ামী লীগও তাদের সিদ্ধান্ত জানাবে।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সংলাপ ১ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যা সাতটায় গণভবনে অনুষ্ঠিত। প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে পাঠানো চিঠিতে এ আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

অর্থকথা/