অর্থকথা ডেস্ক: অতিরিক্ত গরমে শরীরের যেমন প্রয়োজন শীতল পরশ তেমনি ত্বকের যতেœর বা সাজগোজের বিভিন্ন প্রোডাক্টও ঠান্ডা জায়গায় রাখা চাই। নইলে গরমে এর কার্যকারিতা নষ্ট হয়ে যায়। সূর্যের তাপ অনেক সময় শরীরের জন্য উপকারী হলেও কসমেটিকসের জন্য মোটেও ভালো নয়। আমরা সাধারণত গরমে নষ্ট হয়ে যাওয়ার হাত থেকে বাঁচাতে খাবার-দাবার ফ্রিজে রেখে দিই। কিন্তু আপনার প্রিয় কসমেটিকসেরও যে ফ্রিজে একটু জায়গার প্রয়োজন সেটা হয়তো আপনি ভাবেনই না। কসমেটিকসের কার্যকারিতা ঠিক রাখতে গরমে ফ্রিজিংয়ের ব্যবস্থা করা উচিত। তাই বলে সব কিসমেটিকস ফ্রিজে রাখার প্রয়োজন নেই। কিছু কিছু বিউটি প্রোডাক্ট রয়েছে যেগুলো গরমকালে ফ্রিজে রাখাই উত্তম।

লিপস্টিক: লিপস্টিক ব্যবহারের পর কসমেটিকসের শেলফে না রেখে ফ্রিজে রেখে দিন। এতে করে এর কেমিক্যাল উপাদান অটুট থাকবে দীর্ঘদিন।

নেইলপলিশ: গরমে নেইলপলিশ দ্রুত শুকিয়ে যায়। এমনকি অনেক সময় এর কালারও চেঞ্জ হয়ে পড়ে। তাই সঠিক কালার টিকিয়ে রাখতে নেইলপলিশ ফ্রিজে রাখা উচিত।

লিকুইড মেকআপ: একবার খুললেই এর মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার ট্রেন্ড রয়েছে। এতে করে দ্রুত ব্যাকটেরিয়ায় আক্রান্ত হয়। তাই দীর্ঘদিন ব্যবহার করতে চাইলে মাশকারা, আইলানার ও ফাউন্ডেশন এসব লিকুইড জাতীয় কসমেটিকসগুলো ফ্রিজে রাখতে হবে।

আইক্রিম অথবা জেল: আইক্রিম দীর্ঘদিন ব্যবহার করা যায়। এ কারণে এর কার্যকারিতা ঠিক রাখার জন্য ফ্রিজে রেখে ব্যবহার করাই উত্তম। এর ঠান্ডা পরশ চোখের চারপাশে শীতলতা এনে দেয়, রক্ত চলাচল ঠিক রাখে এবং চোখের ফোলাভাব কমাতে সাহায্য করে।

সানস্ক্রিন ক্রিম: ব্যবহার করার পর সানস্ক্রিন ক্রিম অবশ্যই ফ্রিজে রেখে দিন। উষ্ণ আবহাওয়ায় অব্যবহৃত বা অর্ধেক ব্যবহার করা সানস্ক্রিন ক্রিমের এসপিএফ উপাদান নষ্ট হয়ে যায়। তাই এর এসপিএফ উপাদান সুরক্ষা করতে অবশ্যই ফ্রিজে রেখে সানস্ক্রিন ক্রিম ব্যবহার করা উচিত।

সুগন্ধী: সূর্যের সংস্পর্শে আসলে দ্রুত যে বিউটি প্রোডাক্ট ফুরিয়ে যায় সেটি হচ্ছে পারফিউম। বোতল থেকে পারফিউম দ্রুত বেরিয়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এর আসল গন্ধও অনেক সময় হারিয়ে যায়।