বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ডোজের টিকা আগামী ৮ এপ্রিল থেকে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। এই সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করার আগেই দ্বিতীয় ডোজের টিকা দেওয়া শুরু করেছে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল ও কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল। এরই মধ্যে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক গণমাধ্যমকে বলেন, গত ২৮ জানুয়ারি প্রথম ডোজ টিকা নেওয়া ৬০ থেকে ৭০ জনকে আমরা দ্বিতীয় ডোজের টিকা দিয়েছি।তবে, স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা ও পরিচালক (টিকাদান) ডা. শামসুল হক শনিবার রাতে গণমাধ্যমকে জানান, ঢাকা মেডিকেলের দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেওয়ার ব্যাপারে তারা কিছু জানেন না।

অর্থনীতি ও শেয়ারবাজারের গুরুত্বপূর্ন সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন: বিজনেসজার্নালবিজনেসজার্নাল.বিডি

এদিকে শনিবার (০৩ এপ্রিল) স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মিজানুর রহমান স্বাক্ষরিত কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রদান সংক্রান্ত দৈনিক হালনাগাদ তথ্য বলছে, এ পর্যন্ত শুধু রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে দ্বিতীয় ডোজের টিকা গ্রহণ করেছেন ১০ জন ব্যক্তি। অন্য কোনো হাসপাতাল বা কেন্দ্রে কেউ দ্বিতীয় ডোজের টিকা নেননি। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ যে দ্বিতীয় ডোজের টিকা দিয়েছে, সেই তথ্য সেখানে নেই।

কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে দ্বিতীয় ডোজের টিকা দেওয়ার তথ্য স্বীকার করেছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মুখপাত্র ডা. রোবেদ আমিন। তিনি বলেছেন, ২৭ ও ২৮ জানুয়ারি যারা করোনার প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছিলেন, দ্বিতীয় ডোজের এই টিকা নেওয়ার অধিকার তাদের রয়েছে। তারা হাসপাতালে গেছেন, টিকা নিয়েছেন।

এই প্রতিবেদক করোনার প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছিলেন গত ২৭ জানুয়ারি। ওইদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টিকা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছিলেন। টিকা গ্রহণের মাস দেড়েক পর স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে একদিন মুঠোফোনে এই প্রতিবেদককে জানানো হয়, আগামী ২৮ মার্চ আপনাকে দ্বিতীয় ডোজের টিকা দেওয়া হবে।

তার কয়েকদিন পর টিকা গ্রহণের সময় জানতে যোগাযোগ করা হলে বলা হয়েছিল, স্বাস্থ্য অধিদফতর ২৮ মার্চ টিকা দেবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। টিকা দেওয়া হবে ৮ এপ্রিল।ঢাকা মেডিকেল কলেজে ৬০ থেকে ৭০ জনের দ্বিতীয় ডোজের টিকার ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, এই ব্যাপারে আমি জানি না। খোঁজ নিয়ে জানাতে হবে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক গণমাধ্যমকে বলেছেন, আমাদেরকে স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। দ্বিতীয় ডোজের টিকা দিতেও বলা হয়নি, আবার না দিতেও বলা হয়নি। প্রথম ডোজের টিকা দেওয়ার দুই মাস পর দ্বিতীয় ডোজের টিকা দিতে বলা হয়েছিল। সে অনুযায়ী আমরা ২৮ জানুয়ারি টিকা নেওয়া ব্যক্তিদের ২৮ মার্চ থেকে টিকা দিতে শুরু করি। এখন পর্যন্ত ৬০ থেকে ৭০ জনকে দ্বিতীয় ডোজের টিকা দেওয়া হয়েছে। তারপর দেখলাম অন্য হাসপাতালে টিকার দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হচ্ছে না। ফলে এরপর থেকে যারা যারা যোগাযোগ করেছেন, তাদের ৭ এপ্রিলের পর যোগাযোগ করতে বলেছি।

এদিকে টিকা সংকটের কারণে আগামী ৫ এপ্রিল থেকে প্রথম ডোজের টিকাদান কর্মসূচি বন্ধ হচ্ছে বলে কয়েকটি গণমাধ্যম সংবাদ প্রকাশ করেছে। এই ব্যাপারে জানতে চাইলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (টিকাদান) ডা. শামসুল হক বলেন, ‘এই ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।’ একই তথ্য জানিয়েছেন ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

বিজনেসজার্নাল/ঢাকা/এনইউ

 

আরও পড়ুন:

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here