সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসেও আগের দিনের মতো ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেনদেন শেষ হয়েছে। ওই দিন সূচক বাড়ার সঙ্গে বেড়েছে অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ারদর। গতকাল প্রধান সূচকসহ বাকি দুটির সূচকও বেড়েছে। টাকার অঙ্কে লেনদেন আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৫৫২ কোটি ৪৯ লাখ ৭০ হাজার টাকার, যা আগের দিনের চেয়ে ১০৯ কোটি ৬৯ লাখ টাকা বেশি। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সবকটি সূচক ছিল ঊর্ধ্বমুখী। লেনদেনও আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে।
বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৫২ দশমিক ৫৬ পয়েন্ট বা এক দশমিক ০০১ শতাংশ বেড়ে পাঁচ হাজার ২৯৯ দশমিক শূন্য সাত পয়েন্টে অবস্থান করে। ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক সাত দশমিক ৩৩ পয়েন্ট বা দশমিক ৬০ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ২২৬ দশমিক ৪৪ পয়েন্টে অবস্থান করে। আর ডিএস৩০ সূচক ১৬ দশমিক ৩৬ পয়েন্ট বা দশমিক ৮৮ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৮৭৬ দশমিক ৭১ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়ে তিন লাখ ৮৪ হাজার ৪৭৮ কোটি ৬০ লাখ ৩৮ হাজার টাকা হয়। ডিএসইতে গতকাল লেনদেন হয় ৫৫২ কোটি ৪৯ লাখ ৭০ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৪৪২ কোটি ৮০ লাখ ৭৮ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন বেড়েছে ১০৯ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। এদিন ১৪ কোটি ৮৫ লাখ ৪৮ হাজার ৮৪২টি শেয়ার এক লাখ ৩২ হাজার ৬১ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৩৮টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ২৩১টির, কমেছে ৭৩টির ও অপরিবর্তিত ছিল ৩৪টির দর।
গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে খুলনা পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেড। ওই দিন ৪৮ কোটি ৮৪ লাখ ২০ হাজার টাকার কোম্পানিটির ৩৯ লাখ আট হাজার ২২৭টি শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারটির দর এক দশমিক ৭০ শতাংশ বা দুই টাকা ১০ পয়সা কমে প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ১২১ টাকা ২০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ১২২ টাকা ২০ পয়সা। দিনভর শেয়ারদর ১২১ টাকা ২০ পয়সা থেকে ১২৮ টাকা ৫০ পয়সার মধ্যে হাতবদল হয়। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের ২১ কোটি ১২ লাখ ৩৩ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। ওই দিন ৬৬ লাখ ১৯ হাজার ১৬৯টি শেয়ার মোট ৮৬৪ বার হাতবদল হয়। দিনভর শেয়ারদর ৩১ টাকা ৬০ পয়সা থেকে ৩২ টাকা ৮০ পয়সার মধ্যে হাতবদল হয়। তৃতীয় অবস্থানে সামিট পাওয়ার লিমিটেডের ১৩ কোটি ৩৩ লাখ সাত হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। ওই দিন ৩০ লাখ ৭২ হাজার ৫৬৮টি শেয়ার মোট এক হাজার ৮৪৭ বার হাতবদল হয়। দিনভর শেয়ারদর ৪২ টাকা ৬০ পয়সা থেকে ৪৪ টাকা ২০ পয়সার মধ্যে হাতবদল হয়। গতকাল ১০ শতাংশ বেড়ে দরবৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে এসকে ট্রিমস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। এর পর ইউনাইটেড ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের দর ১০ শতাংশ, এমএল ডায়িং লিমিটেডের দর ৯ দশমিক ৯৬ শতাংশ, ভিএফএস থ্রেড ডায়িং লিমিটেডের দর ৯ দশমিক ৮৮ শতাংশ এবং কুইন সাউথ টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের দর ৯ দশমিক ৭৯ শতাংশ বেড়েছে।
চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক এক দশমিক ১৩ শতাংশ বা ১০৯ দশমিক ৮১ পয়েন্ট বেড়ে ৯ হাজার ৮৩৯ দশমিক ২৬ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এক দশমিক ১২ শতাংশ বা ১৮০ দশমিক ৪০ পয়েন্ট বেড়ে ১৬ হাজার ২২৭ দশমিক ৫৭ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২৪০টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৬৬টির, কমেছে ৪৯টির ও অপরিবর্তিত ছিল ২৫টির দর।
সিএসইতে এদিন ৩০ কোটি ১৯ লাখ তিন হাজার ৩৬১ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। সিএসইতে গতকাল লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে সায়হাম টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড, কোম্পানিটির পাঁচ কোটি ৩০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এরপরে তাফাকুল ইসলামী ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের তিন কোটি ৭৪ লাখ ৬০ হাজার টাকার ও সামিট পাওয়ার লিমিটেডের দুই কোটি ৩৯ লাখ ৭০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

অর্থকথা/