বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা- ফিফা যেনো দুর্নীতির আখড়া। সেপ ব্ল্যাটার যুগে রীতিমতো হরিলুট চলেছে সেখানে। এবার সংস্থাটির অর্থ কেলেঙ্কারিতে এক ইসরায়েলি ব্যাংকের সম্পৃক্ততার তথ্য পেয়েছে এফবিআই। ফিফার একাধিক কর্মকর্তার যোগসাজশে ২০ মিলিয়ন ডলার লন্ডারিংয়ের সঙ্গে জড়িত ছিলো ব্যাংকটি। এক বিবৃতিতে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি জেনারেলের অফিস।

ইসরায়েলি ব্যাংক হাপোআলিম বিএম এবং সুইজারল্যান্ডে অবস্থিত সম্পূরক প্রতিষ্ঠানের মানি লন্ডারিংয়ের তথ্য ফাঁস হওয়ায় নতুন মোড় নিলো ফিফার অর্থ কেলেঙ্কারির ঘটনা। ঘুষের বিনিময়ে কোপা আমেরিকার সম্প্রচার স্বত্ব বিক্রয়ের অর্থ ২০১০ থেকে ১৫ সালের মধ্যে ব্যাংকটির মিয়ামি ব্রাঞ্চ থেকে লেনদেন হয়েছিলো বলে উঠে এসেছে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই’এর তদন্তে।

কলম্বিয়ান ফেডারেশন ও দক্ষিণ আমেরিকান ফুটবল কনফেডারেশনের সাবেক সভাপতি লুইস বেদোয়া ফিফার নির্বাহী কমিটির সদস্য থাকাকালীন ।

ইসরায়েলি ব্যাংকের বিরুদ্ধে জালিয়াতির মামলা দায়ের করা হয়েছে। সাড়ে ৫ হাজারেরও বেশি অ্যাকাউন্টে দুর্নীতির অর্থ জমা রেখেছে ব্যাংকটি।

বিজে/জেডআই