যুক্তরাজ্যসহ কয়েকটি দেশে শনাক্ত হওয়া করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ফ্রান্সেও পাওয়া গেছে। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে এই খবর জানিয়েছে বিবিসি।

ফ্রান্সের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, যে ব্যক্তির শরীরে নতুন ধরনের করোনাভাইরাসের সন্ধান পাওয়া গেছে তিনি গত ১৯ ডিসেম্বর লন্ডন থেকে এসেছেন।

সম্প্রতি যুক্তরাজ্য করোনাভাইরাসের নতুন ধরনের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার খবর জানানো হয়। করোনাভাইরাসের নতুন এই ধরনের সংক্রমণ ঠেকাতে একে একে ইউরোপের দেশগুলো যুক্তরাজ্যের সঙ্গে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ করেছে। এসব দেশের মধ্যে রয়েছে নেদারল্যান্ডস, ফ্রান্স, আয়ারল্যান্ড, জার্মানি, বেলজিয়াম, ইতালি ও তুরস্ক। ভারতও যুক্তরাজ্য থেকে আসা বিমানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

শনাক্ত হওয়া করোনাভাইরাসের নতুন স্ট্রেইনটি আগের স্ট্রেইনটির তুলনায় ৭০ শতাংশ বেশি গতিতে ছড়ায় বলে জানানো হয়েছে। করোনার নতুন এই ধরনের সংক্রমণে বিশ্বে উদ্বেগ বেড়েছে। নতুন ধরন ঠেকাতে টিকা কতটা কার্যকর হবে, তা নিয়েও উদ্বেগ ছড়িয়েছে। তবে গবেষকেরা প্রাথমিকভাবে বলছেন, করোনার নতুন ধরন প্রতিরোধেও টিকা কার্যকর।

যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসের নতুন ধরন শনাক্ত হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী উদ্বেগের মধ্যেই দক্ষিণ আফ্রিকাতে আরও একটি ধরন পাওয়া গেছে। বিজ্ঞানীরা বলছেন, দক্ষিণ আফ্রিকার ধরনটি আরও দ্রুত সংক্রমণ ঘটাতে সক্ষম। ইতোমধ্যে সেটি যুক্তরাজ্যেও শনাক্ত হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নতুন ধরনটি করোনায় পর্যুদস্ত যুক্তরাষ্ট্রেও পৌঁছে গেছে।