চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোয় বার্সেলোনা-পিএসজির লড়াইটা হওয়ার কথা ছিল লিওনেল মেসি ও নেইমার জুনিয়রের। কিন্তু নেইমারের ইনজুরির কারণে লড়াইটা হয়ে যায় বর্তমান সময়ের সেরা তারকা মেসি এবং ভবিষ্যত তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পের। সেই লড়াইয়ে পিএসজি তারকা শুধু জয় পাননি কাঁপিয়ে দিয়েছেন ক্যাম্প ন্যু।

ভালো ফর্ম দিয়ে আত্মবিশ্বাস ফিরে পাওয়া বার্সাকে তাদেরই দুর্গে দুমড়ে-মুচড়ে দিয়েছেন তরুণ ফ্রান্স ফরোয়ার্ড এমবাপ্পে। দুর্দান্ত এক হ্যাটট্রিক করে মেসিদের বিপক্ষে জয় তুলে নিয়েছে ৪-১ ব্যবধানে। দ্বিতীয় লেগের আগেই একপ্রকার বার্সাকে বিদায় করে লিগ ওয়ানের দলটি এক পা দিয়ে রেখেছে ইউরোপ সেরার লড়াইয়ের শেষ আটে।

ম্যাচের ২৭ মিনিটের মাথায় প্রথমে গোল করে এগিয়ে যায় কাতালানরা। বিতর্কিত এক পেনাল্টি থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে নেন লিওনেল মেসি। চলতি মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগে চারটি গোলই তিনি করেছেন পেনাল্টি থেকে। এরপর ৩২ মিনিটের মাথায় দারুণ এক গোল করে দলকে সমতায় ফেরান সাবেক মোনাকো তরুণ এমবাপ্পে।

বার্সেলোনা ফ্রান্সের বিশ্বকাপ জয়ী তারকা এমবাপ্পের রুদ্ররূপ দেখে ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে। ৬৫ মিনিটের মাথায় গোল করে তিনি দলকে ২-১ গোলের লিড এনে দেন। পাঁচ মিনিট পরই ব্যবধানটা দ্বিগুন করেন তরুণ ফরোয়ার্ড ময়েস কিন। তার হেড থেকে তিনটি অ্যাওয়ে গোলের স্বস্তি পেয়ে যায় সর্বশেষ মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনাল খেলা দলটি।

এরপর ৮৫ মিনিটে গোল করে ক্যাম্প ন্যু কাঁপানোর শেষ কাজটা করেন কিলিয়ান। চ্যাম্পিয়নস লিগের বার্সেলোনার বিপক্ষে চতুর্থ ফুটবলার হিসেবে পূর্ণ করেন হ্যাটট্রিক। ঠেলে দেন বার্সাকে চলতি মৌসুমেও শিরোপা শূন্য থাকার পথে। গত মৌসুমে কোন শিরোপা জিততে না পারায় ক্ষুব্ধ মেসি বার্সা ছাড়তে উঠে পড়ে লেগেছিলেন। তার সেই পথটাও কি পরিষ্কার করে দিলেন এমবাপ্পে?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here