রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর খেলাপি ঋণ, মূলধন ঘাটতি এবং লোকসানি শাখা কমিয়ে আনার পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে রাষ্ট্রায়ত্ত চার ব্যাংকের এক বিশেষ বৈঠকে এ পরামর্শ দেয়া হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির।

বিগত বছরে ব্যাংক চারটির অর্জন এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা হয় বৈঠকে। এতে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর একেএম সাজেদুর রহমান, নির্বাহী পরিচালক মাসুদ বিশ্বাস ও মো. সিরাজুল ইসলামসহ রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকরা।

রাষ্ট্রায়ত্ত জনতা, সোনালী, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংকের প্রধান সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে মূলধন সঙ্কট। অন্যান্য আর্থিক সূচকের চেয়ে এটিই প্রধান সমস্যা। এজন্য বন্ড ছেড়ে ঘাটতি পূরণের জন্য রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোকে পরামর্শ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বৈঠকটি কেন্দ্রীয় ব্যাংকে অনুষ্ঠিত হয়। ব্যাংকগুলোর মানোন্নয়নে প্রতি বছর কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারক বা চুক্তি সই হয়। এতে আর্থিক বিভিন্ন সূচকের মানোন্নয়নে খাতভিত্তিক লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে দেয়া হয় ব্যাংকগুলোকে।

গত বছরের জন্য সম্পাদিত চুক্তির অগ্রগতি বাস্তবায়ন ও মূল্যায়ন নিয়ে বৈঠকটি করা হয়।

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জাগো নিউজকে বলেন, ‘রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর প্রধান সমস্যা কিন্তু মূলধন ঘাটতি। তারা এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাছে বিশেষ ছাড় চেয়েছে। কারণ হচ্ছে সরকার আর মূলধন ঘাটতি পূরণে সহায়তা করছে না। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পক্ষ থেকে পরামর্শ দেয়া হয়েছে, পার্পেচুয়াল বন্ড ছেড়ে বাজার থেকে অর্থ সংগ্রহ করতে। এর মাধ্যমে ঘাটতি পূরণ সম্ভব।’

বিজনেসজার্নাল/এনইউ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here