পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর মধ্যে উদ্যোক্তা/পরিচালকদের সম্মিলিতভাবে ৩০ শতাংশ শেয়ারধারনে ব্যর্থ কোম্পানির হালনাগাদ (আপডেট) তথ্য চেয়ে স্টক এক্সচেঞ্জকে চিঠি দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। যা সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটিডকেও (সিডিবিএল) দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (০৩ ফেব্রুয়ারি) বিএসইসি থেকে এই চিঠি পাঠানো হয়েছে। এতে আগামি ৫ কার্যদিবসের মধ্যে হালনাগাদ তথ্য কমিশনে জমা দিতে বলা হয়েছে। একইসঙ্গে শেয়ারধারনে ব্যর্থ কোম্পানিগুলো নিয়ে তাদের নিজস্ব তদারকির কোন তথ্য থাকলে, তাও দিতে বলা হয়েছে।

চিঠিতে কমিশনের ২০২০ সালের ১০ ডিসেম্বর জারিকৃত নির্দেশনার বিষয়ে হালনাগাদ তথ্য চাওয়া হয়েছে। যে নির্দেশনায় সম্মিলিতভাবে উদ্যোক্তা/পরিচালকদের ৩০ শতাংশ শেয়ারধারনে ব্যর্থ কোম্পানির পর্ষদ পূণর্গঠনের প্রক্রিয়ার বিস্তারিত জানানো হয়েছে।

কমিশনের ১০ ডিসেম্বরের ওই নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ৩০ শতাংশ শেয়ারধারনে ব্যর্থ কোম্পানির পর্ষদ কমিশনের অনুমোদন সাপেক্ষে অতিরিক্ত ২ জন স্বতন্ত্র পরিচালক নিয়োগ দেবে। যারা ৩০ শতাংশ শেয়ারধারনের বিষয়টি তদারকি করবে এবং পর্ষদে ১ মেয়াদের জন্য থাকবে। আর তদারকির জন্য একটি কমিটি গঠন করবে। এছাড়া অতিরিক্ত নিয়োগকৃত স্বতন্ত্র পরিচালকেরা প্রতি প্রান্তিকের শেষ হওয়ার ১০ দিনের মধ্যে এ বিষয়ে রিপোর্ট জমা দেবে।

শেয়ারহোল্ডারদের অধিকার নিশ্চিত করার জন্য এ জাতীয় ব্যর্থ কোম্পানিগুলো কমিশনের নির্দেশনা জারির পরবর্তী ৪৫ কার্যদিবসের মধ্যে হাইব্রিড সিস্টেমে (স্বশরীর বা ডিজিটাল) সাধারন মিটিং (এজিএম বা ইজিএম) আয়োজন করবে