বিজনেস জার্নাল প্রতিবেদকঃ নিউজিল্যান্ডে সর্বশেষ ছয় ম্যাচের ছয়টিতেই হেরেছে বাংলাদেশ। সব ফরম্যাট হিসেবে আনলে টানা হারের ধারাটা বেড়ে দাঁড়ায় আট ম্যাচে, যার প্রথম দুটো আবার এসেছিল ঘরের মাঠেই। এমন পারফরম্যান্সের কারণ খুঁজতে গিয়ে বোর্ড পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন জানালেন, ‘সুইচ অফ হয়ে গেছে ক্রিকেটারদের!’

বোর্ড কর্মকর্তার অভিমত, টানা হারের পেছনে দায় আছে মানসিক দিকেরও। বললেন, ‘আমার মনে হয় এখন সুইচ অন-অফের যুগ তো, প্লেয়াররা সুইচড অফই হয়ে গেছে। এখন আবার সুইচ অন করতে হবে। আমি মনে করি, এটা শুধুমাত্র ক্রিকেট ট্রেনিং করলেন, না করলেন, তা নয়। ইটস অল এবাউট মেন্টাল। মেন্টালি যদি আপনি ফিট, যদি আপনি মেন্টাল প্রেশার নিতে পারেন তাহলে আপনার ব্যাসিক তো জানাই আছে, আপনি জানেন কিভাবে খেলতে হয়।’

মানসিক প্রস্তুতিকে তাই শ্রীলঙ্কা সফরের প্রধান শর্ত মানছেন সুজন। বললেন, ‘মেন্টালি প্রস্তুত থাকতে হবে এবং যেখানে যাবো খেলতে সেখানে যে কন্ডিশনে হবে তা জানে ছেলেরা। শ্রীলঙ্কাতে এর আগেও ছেলেরা ক্রিকেট খেলেছে। তাই আমার মনে হয় সেগুলো যদি মাথায় রাখি, তাহলে আমাদের ফর্মহীনতাটা খুব একটা সমস্যায় ফেলবে না। ফর্ম ইজ টেম্পোরারি, এটা আজকে আছে, কালকে নেই।’

তবে টানা হারের ফলে দলের ভালো দল তকমাটা খসে পড়েছে, তা মনে করেন না সুজন। জানালেন, এ বৃত্ত শ্রীলঙ্কাতেই ভাঙার ব্যাপারে প্রত্যয়ী বাংলাদেশ। বললেন, ‘অবশ্যই আমরা ভালো দল। যদিও বা আমরা দেশের মাটিতে দুটো সিরিজ পারিনি, আফগানিস্তান বা ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে হেরেছি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে জেতা ম্যাচটা আমরা কিন্তু হেরেছি। হয়তো আমাদের ছোট খাটো ভুল ত্রুটি ছিল। এগুলা কাটিয়ে উঠে চাইবো যে শ্রীলঙ্কায় ভালো কিছু করতে। কারণ আমি মনে করি বাংলাদেশ যখন ভালো খেলে তখন কিন্তু টেস্ট ভালো খেলি। এই দলটার এবিলিটি আছে ম্যাচ জেতার। সুতরাং সেই হিসেব করেই আমাদের শ্রীলঙ্কা যেতে হবে, সেই চিন্তা নিয়েই যেতে হবে। শ্রীলঙ্কায় আমরা জানি যে পাল্লেকেলেতে দুটি টেস্ট ম্যাচ হবে। সেখানে ব্যাট করার জন্য উইকেটটা ভালো, স্পোর্টিং উইকেট। তাই আমি মনে করে আমরা ভালো টেস্ট ম্যাচ খেলব।’

ঢাকা/এনইউ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here