শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ৯ কোম্পানির ১৭ পরিচালকের পদ শূন্য ঘোষণা করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। রবিবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম সাক্ষরিত এক আদেশে এই ঘোষণা করা হয়েছে।

বিএসইসির আদেশে বলা হয়েছে, গত ২ জুলাই বিএসইসি ন্যূনতম ২ শেয়ারধারনে ব্যর্থ পরিচালকদের ৪৫ কার্যদিবসের মধ্যে এই শর্ত পরিপালনের জন্য চিঠি দেয়। তবে এই নির্দিষ্ট সময় শেষেও ৯ কোম্পানির ১৭ পরিচালকের শেয়ারধারন ২ শতাংশের নিচে রয়েছে। তারপরেও তারা কোম্পানির পর্ষদে পরিচালক পদ দখল করে রয়েছে।

এই পরিস্থিতিতে কমিশন সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অধ্যাদেশ ১৯৬৯ এর ২০এ ধারার ক্ষমতাবলে ওই ১৭ পরিচালকদের পদ খালি বলে ঘোষণা করেছে। একইসঙ্গে ওইসব কোম্পানির পর্ষদকে আগামি ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে ২ শতাংশ বা তার অধিক শেয়ারধারনকারীদের মধ্য থেকে শূন্য পদ পূরনের নির্দেশ দিয়েছে।

১৭ জন পরিচালক হলেন-:বাংলাদেশ জেনারেল ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের পরিচালক সোহাইল হুমায়ুন, ইস্টার্ন ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের প্রাতিষ্ঠানিক পরিচালক পাইওনিয়ার ড্রেসেস লিমিটেড, ফুয়াং সিরামিক ইন্ডাস্ট্রেজের পরিচালক হাসিনা ওপনেহ্যাপ।

ইমাম বাটন ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালক মো. লোকমান চৌধুরী, ইনেটক লিমিটেডের পরিচালক এটিএম হাবিবুল আলম,সাদিকা মাহবুব,আনিসুজ্জামান, মেঘনা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের পরিচালক শারমিন নাসির এবং দিলরুবা শারিমন।

মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্সের পরিচালক শফিক আহেমদ, আজাদ মোস্তফা, আজিজ মোহাম্মদ এরশাদ উল্লাহ, ফারহানা ইসলাম সোনিয়া এবং সাদ কাদির বিন সোলাইমান, প্রভাতী ইন্স্যুরেন্সের পরিচালক হাবিব ই আলম চৌধুরী এবং বদলুর রহমান খান। পূরবী জেনারেল ইন্সুরেন্সের উদ্যোক্তা পরিচালক মোহাম্মদ ইকবাল, ইউনাইটেড এয়ারের পরিচালক শাহিনুর আলম।

উল্লেখ্য, ২২টি কোম্পানির ৬১ জন পরিচালককে ২ শতাংশ শেয়ার ধারণ করার জন চিঠি দেয় কমিশন। এর মধ্যে ২৫ জন পরিচালক ২ শতাংশ শেয়ার কিনেছে। বাকীদের মধ্যে ১৮ জন পরিচালক নিজেরাই কোম্পানি পর্ষদ থেকে চলে গেছে। আর ৯ কোম্পানির ১৭ পরিচালক এখনো পর্ষদে আছেন। তাদের পথ শূন্য ঘোষণা করে আজ আদেশ জারি করেছে বিএসইসি।