সিয়াম-পরীমনি জুটির প্রথম চলচ্চিত্র ‘বিশ্বসুন্দরী’ অবশেষে মুক্তি পাচ্ছে প্রেক্ষাগৃহে। করোনা পরিস্থিতির আগে ছবিটি মুক্তির কথা থাকলেও নানা জটিলতায় আটকে যায় ছবিটির মুক্তি। এবার সব জটিলতা কাটিয়ে ১১ ডিসেম্বর ছবিটির মুক্তি কথা জানানো হয়েছে।

সম্প্রতি সমকালকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ছবিটির প্রযোজনা সংস্থা। সবকিছু ঠিক থাকলে আসছে ১১ ডিসেম্বরই সান মিউজিক এন্ড মোশন পিকচার্স লিমিটেড প্রযোজিত চয়নিকা চৌধুরী নির্মিত প্রথম চলচ্চিত্র ‘বিশ্বসুন্দরী’ পাবে।

এই প্রযোজনা সংস্থার নির্বাহী প্রযোজক অজয় কুমার কুন্ডু বলেন, বৈশ্বিক মহামারি করোনার প্রকোপ এখনও বিদ্যমান। তবে আমরা মনে করি, সিনেমা হল বাঁচিয়ে রাখার স্বার্থে এ মুহূর্তে সবাইকেই নিজেদের অবস্থান থেকে এগিয়ে আসতে হবে। আমরা এ সময়ে বড় বাজেটের ছবিটি মুক্তি দেওয়ার সাহস করছি। আশা করছি, অন্য প্রযোজকরাও এগিয়ে আসবেন।

সংবাদমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে অজয় কুমার বলেন, দর্শকদের উদ্দেশ্যে শুধু একটি অনুরোধই করবো- আপনারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে সিনেমা হলে আসুন। যেসব প্রেক্ষাগৃহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে সিনেমা প্রদর্শন করছে, শুধুমাত্র তাদেরকেই আমাদের ছবিটি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এ ব্যাপারে আমরা নিজেরাও সর্বোচ্চ সতর্কতার সাথে পর্যবেক্ষণ করবো।

ছোট পর্দার গুণী নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরীর প্রথম চলচ্চিত্র ‘বিশ্বসুন্দরী’ ছবিতে প্রথমবার দেখা যাবে পরীমনি-সিয়াম জুটিকে। এছাড়াও অভিনয় করেছেন আলমগীর, চম্পা, ফজলুর রহমান বাবু, মনিরা মিঠু, আনন্দ খালেদ, হীরা, সুজন, সীমান্ত সহ আরো অনেকে।

 ছবিটি নিয়ে চয়নিকা চৌধুরী বলেন, বিশ্বসুন্দরী মানবপ্রেম ও দেশপ্রেমকে ঘিরে নির্মিত। তাই বিজয়ের মাসে মুক্তি পাচ্ছে। আশা করি সব শ্রেণির দর্শক পরিবার নিয়ে উপভোগ করবেন ছবিটি।

ছবির কাহিনী, চিত্রনাট্য, সংলাপ লিখেছেন রুম্মান রশীদ খান। তিনি বলেন, এর আগে স্বাধীনতা দিবসের সপ্তাহে মুক্তির কথা থাকলেও দেশব্যাপী লকডাউন শুরু হওয়ার কারণে ছবিটি মুক্তি দেওয়া সম্ভব হয়নি। এবার আমরা চাইছি, বিজয় দিবসের সপ্তাহে দর্শক স্বাস্থ্যবিধি মেনে ছবিটি দেখতে আসুক।

‘বিশ্বসুন্দরী’ দেশব্যাপী পরিবেশনা করবে জাজ মাল্টিমিডিয়া। ছবির সম্প্রচার সহযোগী মাছরাঙা টেলিভিশন।