মহামারী করোনার উদ্ভূত পরিস্থিতির মধ্যেই বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার মজুদ আরেকটি নতুন মাইলফলক অতিক্রম করেছে। মঙ্গলবার রিজার্ভ ৩৯ বিলিয়ন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় তিন হাজার ৯০০ কোটি টাকা) ছাড়িয়েছে। যা অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে।

মঙ্গলবারের কর্মদিবসের শুরুতেই রিজার্ভের পরিমাণ ছিল ৩৯.৪০ বিলিয়ন ডলার। প্রতি মাসে চার বিলিয়ন ডলার আমদানি ব্যয় হিসেবে এই রিজার্ভ দিয়ে প্রায় ১০ মাসের আমদানি ব্যয় মেটানো সম্ভব।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্র জানায়, প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্স ও রফতানি আয় বাড়ার পাশাপাশি জাপানের আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থার (জাইকা) ৩০ কোটি ডলার যোগ হওয়ায় রিজার্ভ এই নতুন মাইলফলকে পৌঁছায়।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্যানুযায়ী, প্রবাসীরা চলতি আগস্ট মাসের ২৭ দিনে ১৭২ কোটি ৫৮ লাখ ডলার রেমিটেন্স পাঠিয়েছেন। যা গেল বছরের পুরো আগস্ট মাসে এসেছিল ১৪৪ কোটি ৪৭ লাখ ডলার।

প্রবাসীরা গত জুলাইয়ে ২৬০ কোটি ডলার রেমিটেন্স পাঠিয়েছিলেন দেশে। বাংলাদেশের ইতিহাসে এর আগে এক মাসে এত রেমিটেন্স কখনো আসেনি। এর আগে এক মাসে সবচেয়ে বেশি রেমিটেন্স এসেছিল গত জুনে। ওই মাসে ১৮৩ কোটি ৩০ লাখ ডলার রেমিটেন্স এসেছিল।