আপনি যদি করোনা টিকার প্রথম ডোজ নিয়ে পরবর্তীতে আর না নেন তাহলে কী হবে? গবেষকরা বলছেন, প্রথম ডোজ নেয়ার পরও করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি থেকে যায়। তাই প্রথম ডোজ নেয়ার পর অবশ্যই দ্বিতীয় ডোজ নিতে পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

করোনার লাগাম টেনে ধরতে এখন পর্যন্ত বিশ্বের ১৭৭টি দেশ ও অঞ্চল টিকাদান কর্মসূচি শুরু করেছে। করোনা প্রতিরোধে মডার্না, ফাইজার-বায়োএনটেক, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকাসহ বেশ কয়েকটি টিকার অনুমোদন দেয়া হয়েছে। জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা ছাড়া সব ভ্যাকসিনেরই দুই ডোজ নেয়া বাধ্যতামূলক। তবে টিকার কার্যকারিতা আরও বাড়াতে জনসন অ্যান্ড জনসনও দুই ডোজের ভ্যাকসিন উদ্ভাবনের চেষ্টা চালাচ্ছে।

অর্থনীতি ও শেয়ারবাজারের গুরুত্বপূর্ন সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন: বিজনেসজার্নালবিজনেসজার্নাল.বিডি

এরই মধ্যে টিকার প্রথম ডোজ নেয়ার পর দ্বিতীয় ডোজ নিয়ে অনেকের মধ্যেই রয়েছে দ্বিধা। ফাইজার ও মডার্নার টিকার প্রথম ডোজ নেয়ার পর, দ্বিতীয় ডোজ আর না নিলে করোনায় আক্রান্তের ঝুঁকি থেকেই যায়- এমনটাই বলছেন গবেষকরা। তারা বলছেন, ফাইজার টিকার এক ডোজ ৫২ শতাংশ কার্যকর। মডার্নার টিকার প্রথম ডোজের কার্যকারিতা প্রায় ৮০ শতাংশ, দ্বিতীয় ডোজ নিলেই কেবল এটি ৯৫ শতাংশ কার্যকর হবে।

ফাইজারের টিকা প্রথম ডোজ নেয়ার তিন সপ্তাহ পর দ্বিতীয় ডোজ এবং মডার্নার ক্ষেত্রে এক মাস পর নেয়ার পরামর্শ দিয়েছে মার্কিন সংক্রামক রোগ ও নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা। দুই ডোজ নেয়ার মধ্যবর্তী সময় কম হওয়াই ভালো। এদিকে ১২ বছরের নিচে শিশুদের টিকা কর্মসূচির আওতায় আনতে ইতোমধ্যে ট্রায়াল শুরু করেছে ফাইজার।

বিজনেসজার্নাল/ঢাকা/এনইউ

 

আরও পড়ুন:

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here