ডিএসইতে প্রি-ওপেন, ওপেনিং, ক্লোজিং ও পোস্ট ক্লোজিং সেশন চালু ১৯ নভেম্বর

ডিএসইতে প্রি-ওপেন সেশন, ওপেনিং সেশন, ক্লোজিং সেশন এবং পোস্ট ক্লোজিং সেশন চালু উপলক্ষ্যে শেয়ারবাজারের সকল স্টেক হোল্ডারদের সফলভাবে ইউএটি এবং সচেতনতা সম্পন্ন হওয়ার আগামী ১৯ নভেম্বর ২০২০ তারিখে প্রি-ওপেন সেশন, ওপেনিং সেশন, ক্লোজিং সেশন এবং পোস্ট ক্লোজিং সেশন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ চালু করতে যাচ্ছে।

উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন ২০ অক্টোবর ২০২০ তারিখে প্রি-ওপেন সেশন, ওপেনিং সেশন, ক্লোজিং সেশন এবং পোষ্ট ক্লোজিং সেশন স্টেকহোল্ডারদের ইউএটি এবং বাজারের সচেতনতা সম্পন্ন করা সাপেক্ষে চালু করার জন্য অনুমোদন করেছে। এইজন্য ডিএসই ২২ অক্টোবর ২০২০ তারিখে শীর্ষ ২০ ট্রেকহোল্ডারদের নিয়ে ইতিমধ্যে ইউএটি সম্পন্ন করেছে।

০৩ নভেম্বর ডিএসই ট্রেকহোল্ডার প্রতিনিধি এবং মার্চেন্ট ব্যাংকের প্রতিনিধিদের নিয়ে সচেতনতামূলক কর্মশালার আয়োজন করেছে। এতে বিপুল সংখ্যক ট্রেকহোল্ডার এবং মার্চেন্ট ব্যাংকের প্রতিনিধিবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। ডিএসই কমিশনকে অবহিত এবং অন্যান্য কার্য সম্পাদন পূর্বক ১৯ নভেম্বর, ২০২০ তারিখের মধ্যে এই সেশনগুলো চালু করবে।

ডিএসইর প্রি-ওপেনিং ও ওপেনিং সেশন হবে সকাল ৯:৪৫ মিনিট থেকে সকাল ১০টা। এ সেশনে বিনিয়োগকারীরা শুধু শেয়ার কেনা বা বেচার আদেশ দিতে পারবেন। এই সেশনে একটি আইডিয়াল ওপেনিং প্রাইস নির্ধারণ করা হবে। সর্বোচ্চ সংখ্যক ক্রেতা এবং বিক্রেতা যেই প্রাইসে থাকবে সেটাই হবে ওপেনিং প্রাইস। নিয়মিত সময়ে যেয়ে এই ওপেনিং প্রাইসে লেনদেনটি সম্পন্ন হবে। পরিবর্তীতে স্বাভাবিক নিয়মে নিয়মিত সেশনটি চালু থাকবে।

এদিকে, দুপুর আড়াইটায় স্বাভাবিক লেনদেন শেষ হওয়ার পর শুরু হবে ক্লোজিং ও পোস্ট ক্লোজিং সেশন। এর ব্যাপ্তি হবে ১০ মিনিট। এ সময়ে বিনিয়োগকারীরা নতুন করে কোনো শেয়ার দর প্রস্তাব করতে পারবেন না। শুধু ক্লোজিং প্রাইসে শেয়ার কেনা বা বেচার সুযোগ পাবেন। এ সেশন শেষ হবে দুপুর ২টা ৪০ মিনিটে।