তাইওয়ানের কাছে আবারও মহড়া চালাল চীন

বিজনেস জার্নাল ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকজন আইনপ্রণেতার একটি দলের তাইওয়ান সফরের প্রতিক্রিয়ায় ফের দ্বীপের কাছে মহড়া চালিয়েছে চীন। তাইপে এসেই যুক্তরাষ্ট্রের আইনপ্রণেতারা তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট সাই ইং-ওয়েনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। একে চীন তার সার্বভৌমত্বের লঙ্ঘন হিসেবে দেখছে। খবর রয়টার্সের।

অর্থনীতি ও শেয়ারবাজারের গুরুত্বপূর্ন সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন: ফেসবুকটুইটারলিংকডইনইন্সটাগ্রামইউটিউব

এ দ্বীপকে চীন তার ‘বিচ্ছিন্ন প্রদেশ’ হিসেবে দাবি করে। কয়দিন আগেই যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির সফর নিয়ে তাইওয়ানের চারপাশে সামরিক মহড়া চালায় বেইজিং। উত্তেজনার মধ্যেই দ্বীপটিতে এলেন যুক্তরাষ্ট্রের আইনপ্রণেতাদের এ দল।

সেনেটর এড মার্কের নেত্বত্বে আইনপ্রণেতাদের দলটি রোববার তাইপে পৌঁছান। পেলোসির পর তাইওয়ান সফরে আসা এটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ প্রতিনিধি দল।

পিপলস লিবারেশন আর্মির ইস্টার্ন থিয়েটার কমান্ড বলছে, সোমবার কয়েকটি বাহিনীর সমন্বয়ে সাগরে ও আকাশে প্রস্তুতিমূলক টহল ও যুদ্ধ মহড়া চালানো হয়েছে।

ইস্টার্ন থিয়েটার কমান্ড আরও বলছে, তাইওয়ান প্রণালিজুড়ে শান্তি ও স্থিতিশীলতা নষ্টের জন্য যুক্তরাষ্ট্র ও তাইওয়ানের অব্যাহত রাজনৈতিক কৌশলের বিরুদ্ধে এ অনুশীলন কঠোর বর্তা।

চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ভিন্ন এক বিবৃতিতে জানায়, যুক্তরাষ্ট্রের আইনপ্রণেতাদের তাইওয়ান সফর চীনের সার্বভৌমত্ব ও আঞ্চলিক অখণ্ডতার লঙ্ঘন। যা তাইওয়ান প্রণালীতে শান্তি ও স্থিতিশীলতা নষ্টকারী এবং লুণ্ঠনকারী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের আসল চেহারা সম্পূর্ণরূপে প্রকাশ করে। চীনের সেনাবাহিনী যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি ও প্রশিক্ষণ অব্যাহত রেখেছে।

তবে কোনো বিবৃতিতেই মহড়া সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো হয়নি। তাইওয়ানের প্রধানমন্ত্রী সু সং-চাঙ বলেন, বিদেশি বন্ধুদের দ্বীপটিতে সফর নিয়ে চীনের হুমকি সত্ত্বেও আমরা বিচলিত হব না।

এর পেলোসির তাইওয়ার সফরের পর লাইভ ফায়ার মহড়া চালিয়েছিল চীন। এ সময় মহড়া থেকে ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্র উড়ে গিয়েছিল তাইপের উপর দিয়ে। আরও পাঁচটি ক্ষেপণাস্ত্র পড়েছিল জাপানের বিশেষ ইকনোমিক জোনে।

 ঢাকা/এসএ