মানি মার্কেট খোলা থাকলে পুঁজিবাজারও খোলা থাকবে। বিনিয়োগকারীরা যাতে পেনিক না হয়, সে জন্য আমরা বিএসইসি থেকে আগে থেকেই আমাদের অবস্থান পরিষ্কার করে দিয়েছি। বিএসইসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

জানতে চাইলে তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, হয়তো লেনদেন কম হতে পারে কিন্তু মার্কেট খোলা থাকবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পুঁজিবাজার বিশ্লেষক অধ্যাপক আবু আহমেদ গণমাধ্যমকে বলেন, মানি মার্কেট খোলা থাকলে পুজিবাজার খোলা রাখার বিষয়টি দেশের বাজারের জন্য ইতিবাচক। বর্তমান কমিশনের এটি একটি খুবই ভালো উদ্যোগ। আগেই বিএসইসির বক্তব্য পরিষ্কার করায় এটাকে নিয়ে কেউ গুজব সৃষ্টি করতে পারবে না।

অর্থনীতি ও শেয়ারবাজারের গুরুত্বপূর্ন সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন: বিজনেসজার্নালবিজনেসজার্নাল.বিডি

পুঁজিবাজার বিশ্লেষকদের মতে বিনিয়োগকারীরা আতঙ্কিত না হয়ে শেয়ার বিক্রি না করলে অসাধু চক্র শেয়ার হাতিয়ে নিতে পারবেন না। তাই বিনিয়োগকারীদের সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বাজার বিশ্লেষকরা।

উল্লেখ্য, আগামী সোমবার থেকে এক সপ্তাহের জন্য লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। অন্যদিকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতেও এ কথা বলা হয়েছে। সেখানে জানানো হয়েছে, দ্রুত ছড়াতে থাকা করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকার দুই-তিন দিনের মধ্যে এক সপ্তাহের জন্য লকডাউনের চিন্তা করছে।

এর আগে লকডাউনের সময় দেশের শেয়ারবাজার বন্ধ ছিল। গত বছরের মার্চের মাঝামাঝি সময়ে দেশের করোনা পরিস্থিতির অবনতি হতে শুরু করলে ১৯ মার্চ থেকে শেয়ারবাজারে লেনদেনের সময় এক ঘণ্টা কমিয়ে দেওয়া হয়। করোনার কারণে সরকার গত বছরের ২৬ মার্চ সাধারণ ছুটি ঘোষণা করলে শেয়ারবাজারের লেনদেনও বন্ধ রাখা হয়। সেসময় ৬৬ দিন টানা বন্ধের পর গত বছর ৩১ মে আবার চালু হয়েছিলো শেয়ারবাজারের লেনদেন।

বিজনেসজার্নাল/ঢাকা/এনইউ

 

আরও পড়ুন:

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here