বিজনেস জার্নাল প্রতিবেদক: করোনার প্রাদুর্ভাবে দেশের ক্ষতিগ্রস্ত উৎপাদন ও রফতানিকারকদের জন্য বিশেষ ঋণ সহায়তা দিতে প্রি-শিপমেন্ট ক্রেডিট পুনঃঅর্থায়ন স্কিম নামের পাঁচ হাজার কোটি টাকার একটি বিশেষ তহবিল গঠন করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। তিন বছর মেয়াদি এ স্কিমের গ্রাহক পর্যায়ে সর্বোচ্চ ঋণের সুদহার ছিল ৬ শতাংশ। এখন তা আরও এক শতাংশ কমিয়ে ৫ শতাংশ নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। আজ সোমবার (২৬ এপ্রিল) বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করা হয়েছে।

ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী, গ্রাহক পর্যায়ে সুদহার হবে সর্বোচ্চ ৫ শতাংশ এবং ব্যাংক পর্যায়ে সুদহার- বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ব্যাংকগুলোর নেওয়া পুনঃঅর্থায়ন সুবিধার ওপর ২ শতাংশ হারে সুদ আরোপ করা হবে। এ নির্দেশনা অবিলম্বে কার্যকর হবে।

সার্কুলারে বলা হয়েছে, প্রি-শিপমেন্ট ক্রেডিট পুনঃঅর্থায়ন স্কিমের আওতায় স্বল্প সুদে ঋণ প্রাপ্তি নিশ্চিত করার মাধ্যমে রফতানি খাতে অধিকতর প্রবৃদ্ধি অর্জন করার লক্ষ্যে গ্রাহক ও ব্যাংক পর্যায়ে সুদহার হ্রাস করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ লক্ষ্যে বিআরপিডি আগের সার্কুলার প্রতিস্থাপন করা হলো।

এর আগে ২০২০ সালের ১৩ এপ্রিল জারি করা বিআরপিডি সার্কুলারে কোভিড-১৯ মহামারির কারণে ক্ষতিগ্রস্ত রপ্তানিমুখি শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোকে প্রি-শিপমেন্ট রফতানি ঋণ সহায়তা দেওয়ার মাধ্যমে তাদের রফতানি কার্যক্রম অব্যাহত রেখে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন ও অর্থনীতিতে গতিশীলতা আনার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক পাঁচ হাজার কোটি টাকার পুনঃঅর্থায়ন তহবিল সুবিধা দেওয়া হয়। এ তহবিল থেকে প্রি-শিপমেন্ট ক্রেডিট খাতে গ্রাহক পর্যায়ে ঋণের সুদহার সর্বোচ্চ ৬ শতাংশ এবং বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে অন্যান্য ব্যাংকের নেওয়া পুনঃঅর্থায়ন সুবিধার ওপর সুদহার ৩ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়।

ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯৯ এর ৪৫ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করা হয়েছে বলে সার্কুলারে বলেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

ঢাকা/এনইউ