ফিঞ্চ-স্মিথের সেঞ্চুরিতে হার ভারতের

হার দিয়ে অস্ট্রেলিয়া সফর শুরু করল বিরাট কোহলি বাহিনী। অজিদের রান পাহাড়ে চাপা পড়ে শুরুতেই উইকেট হারায় ভারত। তবে ওপেনার শেখর ধাওয়ান এবং লোয়ার মিডল অর্ডারে হার্ডিক পান্ডিয়া লড়াই চালিয়ে যান। শেষ পর্যন্ত ৩৭৫ রান তাড়া করে ৬৬ রানে হারে সফরকারী ভারত।

শুক্রবার ওয়ানডে দিয়ে শুরু হওয়া পূর্ণাঙ্গ সিরিজে টস জিতে ব্যাট করতে নামে অস্ট্রেলিয়া। সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে শুরু করে অসাধারণ ব্যাটিং। ওপেনিং জুটিতে ডেভিড ওয়ার্নার এবং অ্যারণ ফিঞ্চ ১৫৬ রানের জুটি গড়েন। ওয়ার্নার ২৮তম ওভারে শামির বলে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন। এরপর ফিঞ্চ এবং স্টিভ স্মিথ সেঞ্চুরি করে ভারতকে রান পাহাড়ে চাপা দেন।

অজি অধিনায়ক এবং ওপেনার ফিঞ্চ খেলেন ৯ চার ও দুই ছক্কায় ১১৪ রানের দারুণ ইনিংস। তার সঙ্গে তিনে নামা স্টিভ স্মিথ করেন ১০৪ রান। তার ৬৬ বলের ইনিংসটি ছিল ১১ চার ও চারটি ছক্কায় সাজানো। শেষ দিকে গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ১৯ বলে ৪৫ রানের ঝড় দেখালে রানটা ফুলে-ফেঁপে ওঠে স্বাগতিকদের।

জবাব দিতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় রবি শাস্ত্রীর শিষ্যরা। অজি পেসার জর্জ হ্যাজলউড ২২ রান করতেই তুলে নেন মায়াঙ্ক আগারওয়ালকে। এরপর বিরাট কোহলি ২১ রান করে কাটা পড়েন হ্যাজলউডের বলে। ক্রিজে থাকা শেখর ধাওয়ানের সঙ্গে দলের হাল ধরতে হতো শ্রেয়াস আয়ারের। কিন্তু আইপিএলে দারুণ ফর্মে থাকা আয়ার ২ রান করে কাটা পড়েন। এবারও ঘাতক হ্যাজলউড।

ভারতের জন্য আয়ারের বিদায়ের চেয়েও বড় ধাক্কা হয়ে আসে কেএল রাহুলের ১২ রানে সাজঘরে ফেরা। সফরকারীরা তখন ১৩.৩ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১০১ রান করে ধুঁকছে। পরে ধাওয়ানের সঙ্গে জুটি গড়েন হার্ডিক পান্ডিয়া। তিনি খেলেন ৭৬ বলে সাত চার ও চার ছয়ে ৯০ রানের ইনিংস। ধাওয়ানের ব্যাট থেকে আসে ৭৪ রান। তারা ফিরতেই জয়ের আশা শেষ হয়ে যায় ভারতের। শেষ পর্যন্ত তারা নির্ধারিত ৫০ ওভারে তুলতে পারে ৮ উইকেট। অজিদের হয়ে হ্যাজলউড ছাড়াও তোপ দাগেন লেগ স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা। তিনি তুলে নেন ৪ উইকেট।