দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অন্যতম বৃহৎ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরে ১৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বিনিয়োগ প্রস্তাব এসেেছে। প্রায় ৩৩ হাজার একরের জমির উপর গড়ে তোলা হচ্ছে এ শিল্পনগর। প্রধানমন্ত্রীর মাস্টার প্ল্যানে শিল্প নগরকে কয়েকটি জোনে ভাগ করে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো তৈরী করার কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। বেজা সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এ শিল্প নগরকে প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে সর্বোচ্চ সুরক্ষা প্রদানের জন্য ২৩ কিলোমিটার দীর্ঘ দেশের সর্বপ্রথম সুপারডাইক প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। ভবিষ্যতে ঢাকা-চট্টগ্রাম-কক্সবাজারের মধ্যে নিরবচ্ছিন্ন সংযোগ পরিকল্পনার অংশ হিসেবে মেরিন ড্রাইভ রোডের সাথে সুপারডাইকটিকে সংযুক্ত করার অপার সম্ভাবনা রয়েছে এখানে।

শিল্প প্রতিষ্ঠান ছাড়াও আবাসিক ও বাণিজ্যিক এলাকা, বিজনেস হাব, সার্ভিসজোন, প্রশাসনিক প্রাতিষ্ঠানিক এলাকা ও পুনর্বাসন এলাকা, লজিস্টিক হাবসহ পরিবেশ বান্ধব শিল্পনগর প্রতিষ্ঠা করার জন্য সবুজ পার্ক, মাঠ এবং জলাশয়সহ প্রচুর উন্মুক্ত এলাকার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। শিল্পের জন্য পানি সরবরাহ করার লক্ষ্যে ডিস্যালাইনেশন প্ল্যান্ট, বর্জ্য পরিশোধনের জন্য সিইটিপি স্থাপন করা হবে। এ নগরকে একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ নগর হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার নিমিত্ত বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে পিআরআডিই প্রকল্পের কার্যক্রম ২০২১ সালে শুরু হবে।

বঙ্গবন্ধু অর্থনৈতিক অঞ্চলে নিরাপদ কর্মক্ষেত্র এবং শ্রম ব্যবস্থা উন্নয়ন বিষয়ে বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরের বিনিয়োগকারী, কর্মকর্তা এবং কর্মরত শ্রমিকদের জন্য তিন দিনব্যাপী এক প্রশিক্ষণ কর্মশালা গত ০৬-০৮ জানুয়ারি, ২০২১ তারিখে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরে অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের আওতাধীন সাপোর্ট টু ক্যাপাসিটি বিল্ডিং অব বেজা প্রকল্পের উদ্যোগে প্রশিক্ষণটির আয়োজন করা হয়। প্রশিক্ষণে প্রায় ৮০ জন কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শ্রমিককে দুটো ভাগে বিভক্ত করে নিরাপদ কর্মক্ষেত্র নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। কোর্সটি পরিচালনা করেন সাপোর্ট টু ক্যাপাসিটি বিল্ডিং অব বেজা প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক এবং সরকারের অতিরিক্ত সচিব মো. আলী আহসান।

প্রশিক্ষণে বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরের উন্নয়ন কার্যক্রম সম্পর্কে কর্মকর্তা, কর্মচারি ও শ্রমিকদের অবহিত করা হয় এবং দেশের উন্নয়নের গতিধারায় পূর্ণদ্যোমে সকলকে নিয়োজিত হওয়ার আহ্বান জানান প্রশিক্ষণের সম্পদ ব্যক্তিরা। শিল্পনগর উন্নয়নে কর্মক্ষেত্রে সামাজিক, পরিবেশগত সমস্যা এবং উন্নয়নকাজে নিয়োজিত ডেভেলপার, বিনিয়োগকারী, কর্মকর্তা ও শ্রমিকদের পরিবেশগত ঝুঁকি ও এথেকে উত্তোরণের বিষয়ে অবহিত করেন প্রকল্পের সামাজিক বিশেষজ্ঞ মো. আব্দুল কাদের খান এবং পরিবেশ বিশেষজ্ঞ ড. তানভীর আহমেদ।

এছাড়া পরিবেশ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি শিল্পনগরের পরিবেশ সংরক্ষণে সকলের ভূমিকা সম্পর্কে অবহিত করেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা কোভিড-১৯ কালীন স্বাস্থ্যবিধি নিয়ে আলোচনা করেন। মিরসরাইয়ের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দুর্যোগকালীন করণীয় বিষয়ে এবং শিল্পনগর উন্নয়নে প্রশাসনের ভূমিকা তুলে ধরেন। উক্ত কর্মশালায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সহায়তায় প্রশিক্ষণ ও মহড়ার আয়োজন করা হয়।

গত বৃহস্পতিবার প্রশিক্ষণের সমাপনী পর্ব অনুষ্ঠিত হয় এবং বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ করেন। তিনি বলেন, দক্ষ মানবসম্পদ তৈরীতে বেজা সবসময় কাজ করছে এবং এজন্য প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষনের যে ধারা শুরু হয়েছে তা ভবিষ্যতে আরো সম্প্রসারিত হবে। তিনি বলেন, পরবর্তীতে স্থানীয় যুবকদের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে যাতে তারা অর্থনৈতিক অঞ্চলের জন্য নিজেদের দক্ষ করে গড়ে তুলতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here