বিজনেস জার্নাল প্রতিবেদক: বরিশাল বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে একজন করোনভাইরাস পজিটিভ ছিলেন। চারজন করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। একই সময়ে ৩৯ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে।

শনিবার (০১ মে) বরিশাল বিভাগীয় স্বাস্থ্য দফতর ও শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পরিচালকের কার্যালয় থেকে এসব তথ্য জানানো হয়।

এছাড়া পরীক্ষা করাতে আসা মোট সংখ্যার ১৯ শতাংশ ব্যক্তির করোনা পজিটিভ বলে জানিয়েছে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা পরীক্ষাগার। বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. বাসুদেব কুমার দাস বলেন, নতুন ৩৯ জন নিয়ে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ হাজার ৫৬২ জন। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে বরিশাল জেলায়।

অর্থনীতি ও শেয়ারবাজারের গুরুত্বপূর্ন সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন: বিজনেসজার্নালবিজনেসজার্নাল.বিডি

বরিশাল জেলায় নতুন ১৬ জন নিয়ে ৬ হাজার ৬১৮ জন, পটুয়াখালীতে নতুন সাতজন নিয়ে ২ হাজার ১২৩, ভোলায় নতুন ১১ জন নিয়ে ১ হাজার ৭৬১, পিরোজপুরে নতুন একজন নিয়ে ১ হাজার ৫৭৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বরগুনায় নতুন একজন নিয়ে ১ হাজার ২১৩ এবং ঝালকাঠিতে নতুন তিনজন নিয়ে ১ হাজার ২৬৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১১ হাজার ৮৪৯ জন।

বিভাগে এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ২৬২ জন। এর মধ্যে বরিশালে ১০৯ জন, পটুয়াখালীতে ৫০, ভোলায় ২৪, পিরোজপুরে ৩১, বরগুনায় ২৪ ও ঝালকাঠিতে ২৪ জন। এদিকে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালকের কার্যালয়ের তথ্য সংরক্ষক জে খান স্বপন জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আরটি-পিসিআর ল্যাবে ১৮৮ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ১৯ দশমিক ৬৮ শতাংশের করোনা পজিটিভ এসেছে। 

তিনি আরও বলেন, এ সময়ে করোনা ইউনিটে ১২ জন নতুন রোগী উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হয়েছেন। যাদের মধ্যে একজনের করোনা পজিটিভ। উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন চারজন। হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ৮৬ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এর মধ্যে ৫৫ জন উপসর্গ নিয়ে ভর্তি। ৩৩ জন করোনা রোগী।

দফতরের তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, আগের ২৪ ঘণ্টায় (২৯ এপ্রিল) আক্রান্ত হয়েছিলেন ৪৮ জন। উপসর্গ থাকা ব্যক্তিদের ১৮ দশমিক ১০ শতাংশ ছিল পজিটিভ। পরের ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ৩৯ জন। শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ৬৮ শতাংশ। তবে বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) করোনা পজিটিভ একজনের মৃত্যু হলেও উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন আটজন। আর শুক্রবার একজন করোনা পজিটিভ রোগী মারা গেলেও করোনা উপসর্গ নিয়ে চারজনের মৃত্যু হয়েছে।

আরও পড়ুন: