ব্লক মার্কেটে লেনদেনের শীর্ষে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স

বিজনেস জার্নাল প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্লক মার্কেটে রোববার ৩৬টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব কোম্পানির ৮৮ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ৪৫ কোটি ১৭ লাখ ১০ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র মতে, কোম্পানিগুলোর ১ কোটি ১ লাখ ১২ হাজার ২১৬টি শেয়ার ৮৮ বার হাত বদল হয়েছে। এর মাধ্যমে কোম্পানিগুলোর ৮৮ কোটি ১৩ লাখ ৮৬ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে।

কোম্পানিগুলোর মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৬ কোটি ৪০ লাখ ৫৬ হাজার টাকার ফরচুন সুজের এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ ৪ কোটি ৮২ লাখ ৭৫ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে জিবিবি পাওয়ারের।

অর্থনীতি ও শেয়ারবাজারের গুরুত্বপূর্ন সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন: ফেসবুকটুইটারলিংকডইনইন্সটাগ্রামইউটিউব

এছাড়া অ্যাডভেন্ট ফার্মার ৫ লাখভ ৭৪ হাজার টাকার, অগ্নি সিস্টেমসের ৫ লাখ ১৭ হাজার টাকার, আলিফ ম্যানুফ্যাচকারিংয়ের ৭ লাখ টাকার, আনোয়ার গ্যালভানাইজিংয়ের ৩ কোটি ৭৩ লাখ ৫৩ হাজার টাকার, আরামিট সিমেন্টের ৫ লাখ ৬১ হাজার টাকার, এশিয়া ইন্স্যুরেন্সের ৩০ লাখ ৬০ হাজার টাকার, এশিয়ান টাইগার সন্ধানী লাইফ গ্রোথ ফান্ডের ২ কোটি ১৩ লাখ ৩৭ হাজার টাকার, বিকন ফার্মার ৩ কোটি ৮৯ লাখ ১৬ হাজার টাকার, বেঙ্গল উইন্ডসোরের ৫ লাখ ৯৬ হাজার টাকার, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্সের ১ কোটি ৩৬ লাখ ৩০ হাজার টাকার, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবলের ১ কোটি ৪৬ লাখ ৬১ হাজার টাকার, সিটি ব্যাংকের ২ কোটি ৫৩ লাখ ৭২ হাজার টাকার, কনফিডেন্স সিমেন্টের ১৩ লাখ টাকার, কপারটেকের ২৭ লাখ ৮১ হাজার টাকার, ইস্টার্ন ব্যাংকের ১ কোটি ৪২ লাখ ৪০ হাজার টাকার, ফু-ওয়াং ফুডের ৮ লাখ ৮৮ হাজার টাকার, গ্লোবাল হেভি কেমিক্যালের ৫ লাখ ৪১ হাজার টাকার, গ্রামীণফোনের ১ কোটি ৪৫ লাখ টাকার, ইনডেক্স এগ্রোর ৩৩ লাখ ৪১ হাজার টাকার, কেয়ার ৬ লাখ ৭৫ হাজার টাকার, কাট্টালি টেক্সটাইলের ৩৭ লাখ ৪০ হাজার টাকার, মালেক স্পিনিংয়ের ৬১ লাখ ১০ হাজার টাকার, ম্যারিকোর ২ কোটি ৩৭ লাখ ২০ হাজার টাকার, মীর আখতারের ১ কোটি ৮৭ লাখ ৩৬ হাজার টাকার, এনআরবিসি ব্যাংকের ৬ লাখ ২৪ হাজার টাকার, রহিম টেক্সটাইলের ৩ কোটি ৫৫ লাখ ৯৬ হাজার টাকার, সাইফ পাওয়ারের ৫ লাখ ৭৫ হাজার টাকার, সিলভা ফার্মার ৩২ লাখ ৮২ হাজার টাকার, সোনালী পেপারের ৮ লাখ ৯১ হাজার টাকার, শাইনপুকুর সিরামিকের ৩৮ লাখ ৮০ হাজার টাকার, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিকের ৫০ লাখ ৮২ হাজার টাকার, তিতাস গ্যাসের ১ কোটি ৮৯ লাখ টাকার এবং ভিএফএস থ্রেড ডাইংয়ের ৬ লাখ ৬৫ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে।

ঢাকা/এনইউ 

আরও পড়ুন: