ব্লক মার্কেটে ৪ কোম্পানির বিশাল লেনদেন

বিজনেস জার্নাল প্রতিবেদক: সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ব্লক মার্কেটে ৫৩টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব কোম্পানির ৩০ কোটি ৭৭ লাখ ৬১ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
কোম্পানিগুলোর ৫৯ লাখ ১৭ হাজার ৭৮১টি শেয়ার ৮৬ বার হাত বদল হয়েছে। এর মাধ্যমে কোম্পানিগুলোর ৩০ কোটি ৭৭ লাখ ৬১ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে।

কোম্পানিগুলোর মধ্যে ৪ কোম্পানির বড় লেনদেন হয়েছে। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি শেয়ার লেনদেন হয়েছে সাউথইস্ট ব্যাংকের। কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৪ কোটি ৩৬ লক্ষ ৫ হাজার টাকার।

দ্বিতীয় সর্বোচ্চ এইচআর টেক্সটাইলের ৩ কোটি ৩৬ লক্ষ ৬৩ হাজার টাকার, তৃতীয় সর্বোচ্চ রেনাটার ২ কোটি ৭৪ লক্ষ টাকার, চতুর্থ সর্বোচ্চ গ্রামীণফোনের ২ কোটি ২৭ লক্ষ ৭৩ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে।

অর্থনীতি ও শেয়ারবাজারের গুরুত্বপূর্ন সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন: ফেসবুকটুইটারলিংকডইনইন্সটাগ্রামইউটিউব

এছাড়া, সোনালী পেপারের ১ কোটি ৯০ লক্ষ ৪০ হাজার টাকার, ফর্চুন সুজের ১ কোটি ৬৬ লক্ষ ৮৭ হাজার টাকার, জেনেক্স ইনফোসিসের ১ কোটি ৬৪ লক্ষ ৬৬ হাজার টাকার, স্কয়ার ফার্মার ১ কোটি ৫১ লক্ষ ৩৬ হাজার টাকার, সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্সের ১ কোটি ৭ লক্ষ ৯৫ হাজার টাকার, বেক্সিমকোর লিমিটেডের ১ কোটি ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকার, ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকোর ৮৫ লক্ষ ২১ হাজার টাকার, ম্যারিকোর ৮৩ লক্ষ ২ হাজার টাকার, গ্রীন ডেল্টা ইন্সুরেন্সের ৬৭ লক্ষ ১৮ হাজার টাকার, কুইন সাউথের ৬০ লক্ষ ৮২ হাজার টাকার, আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজের ৪৬ লক্ষ ৫৯ হাজার টাকার, সিএপিএমবিডিবিএল মিউচুয়াল ফান্ডের ৩৮ লক্ষ ১৯ হাজার টাকার, আরামিট সিমেন্টের ৩৪ লক্ষ ৮৯ হাজার টাকার, ব্র্যাক ব্যাংকের ৩১ লক্ষ ৩২ হাজার টাকার, মালেক স্পিনিংয়ের ৩১ লক্ষ ১ হাজার টাকার, পিপলস ইন্সুরেন্সের ২৭ লক্ষ ৮৪ হাজার টাকার, নিউ লাইনের ২৭ লক্ষ ৬০ হাজার টাকার, এমারেল্ড অয়েলের ২৬ লক্ষ ৬৩ হাজার টাকার, প্রিমিয়ার সিমেন্টের ২২ লক্ষ ৫ হাজার টাকার, পাওয়ার গ্রীডের ২০ লক্ষ ৩৬ হাজার টাকার, কপারটেকের ২০ লক্ষ ৩০ হাজার টাকার, লঙ্কাবাংলা ফাইন্যান্সের ১৯ লক্ষ ৭০ হাজার টাকার, ওয়াইমেক্সের ১৮ লক্ষ ৭০ হাজার টাকার, বেক্সিমকো ফার্মার ১৭ লক্ষ ৮৬ হাজার টাকার, জিবিবি পাওয়ারের ১৭ লক্ষ ২৬ হাজার টাকার, আরএকে সিরামিকের ১৬ লক্ষ ৮৮ হাজার টাকার, কনফিডেন্স সিমেন্টের ১৬ লক্ষ ৭৯ হাজার টাকার, বার্জার পেইন্টসের ১৪ লক্ষ ১০ হাজার টাকার, সিলভা ফার্মার ১৪ লক্ষ ১০ হাজার টাকার, মীর আক্তারের ১৪ লক্ষ ৯৬ হাজার টাকার, এসইএমএলএফবিএসএল গ্রোথ ফান্ডের ১২ লক্ষ টাকার, ফাইন ফুডসের ১১ লক্ষ ২ হাজার টাকার, বিকনফার্মার ১১ লক্ষ টাকার, তৌফিকা ফুডের ১০ লক্ষ ৭১ হাজার টাকার, মুন্নু ফেব্রিক্সের ১০ লক্ষ ১৬ হাজার টাকার, কন্টিনেন্টাল ইন্স্যুরেন্সের ১০ লক্ষ ১৪ হাজার টাকার, শাইনপুকুর সিরামিকের ৯ লক্ষ ৮৪ হাজার টাকার, পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্সের ৮ লক্ষ ৯৬ হাজার টাকার, আমান ফিডের ৭ লক্ষ ৪৮ হাজার টাকার, পেপার প্রসেসিংয়ের ৬ লক্ষ ৯২ হাজার টাকার, রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্সের ৬ লক্ষ ৫০ হাজার টাকার, ন্যাশনাল ফিড মিলের ৬ লক্ষ ৯ হাজার টাকার, ওরিয়ন ফার্মার ৫ লক্ষ ৯০ হাজার টাকার, স্ট্যান্ডার্ড ইন্সুরেন্সের ৫ লক্ষ ৪৭ হাজার , ডাচবাংলা ব্যাংকের ৫ লক্ষ ৪৬ হাজার টাকার, ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্সের ৫ লক্ষ ৪৬ হাজার টাকার, ডেলটা ব্রাক হাউজিংয়ের ৫ লক্ষ ৬ হাজার টাকার, এশিয়ান টাইগার গ্রোথ ফান্ডের ৫ লক্ষ ২ হাজার টাকার, এসএস স্টিলের ৫ লক্ষ টাকার লেনদেন হয়েছে।

ঢাকা/এনইউ

আরও পড়ুন: