বিজনেস জার্নাল ডেস্ক: বিশ্বের প্রায় দেশের মতো করোনা মহামারি যুক্তরাজ্যেও হানা দিয়েছে। মাস কয়েক আগে দেশটিতে করোনা হামলে পড়েছিল। বিভিন্ন শহর পরিণত হয়েছিল মৃত্যুপুরীতে। সেই কারণে এখনও সারা যুক্তরাজ্যে চলছে লকডাউন। তবে পবিত্র পবিত্র রমজানের রোজা পালন ও অন্যান্য ইবাদত-বন্দেগি চলছে নিয়মমাফিক। এক্ষেত্রে কোনো ধরনের তারতম্য কিংবা শিথিলতা চলছে না।

করোনার কারণে গত বছরের মতো যুক্তরাজ্যে এবারও জনসমাগম করে ইফতার আয়োজন হচ্ছে না। তাই প্রথমবারের মতো ভার্চুয়াল ইফতার আয়োজনে যুক্ত হয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) সন্ধ্যায় করোনাকালের সম্মুখযোদ্ধা ও স্বেচ্ছাসেবীদের সঙ্গে জুম কলে ভার্চুয়াল ইফতারের আয়োজনে শরিক হন তিনি। এ সময় বরিস রোজাদারদের সঙ্গে খেজুর ও পানি খেয়ে সময় মতো ইফতার করেন।

অর্থনীতি ও শেয়ারবাজারের গুরুত্বপূর্ন সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন: বিজনেসজার্নালবিজনেসজার্নাল.বিডি

বরিস জনসন ইফতার আয়োজনের কথা লিখে টুইটও করেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘গতরাতে আমি কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমাদের সহায়তাকারী অনেক মুসলিম সম্মুখযোদ্ধা এবং স্বেচ্ছাসেবীর সঙ্গে ইফতারে যোগ দিতে পেরে আনন্দ ও পুলক অনুভব করছি।

মি. জনসন আরও বলেন, মুসলমানদের এখনও কোভিড-১৯ এর বিধিনিষেধ অনুসরণ করতে হবে। তবে আমি আশা করি, এই মাসের উপবাস, প্রার্থনা ও সদকা— সব মুসলমানদের জন্য অনেক শান্তি ও প্রতিচ্ছবি বয়ে আনবে।

ইফতার আয়োজন উপলক্ষে মেরিডেনের কনজারভেটিভ পার্টির সংসদ সদস্য ও ইফতারের আয়োজক সাকিব ভাট্টি বলেন, কোভিড-১৯ মহামারির কারণে যুক্তরাজ্যের মুসলমানদের উল্লেখযোগ্য সমস্যায় পড়েছিল। এমন অনেক প্রিয়জন এবং বন্ধুবান্ধব আছেন, যারা আমাদের সঙ্গে নেই। সুতরাং আপনি যখনই দোয়া-প্রার্থনা করেন, তখন সারা দেশে কষ্টে পীড়িত যে অনেক পরিবার আছে, তাদরে স্মরণ রাখুন।

তিনি আরও বলেন, রোজা রেখে আমরা জানি যে, কষ্টের পরে সহজতা ও সুখ আসে। আমরা প্রার্থনা করি যে, তাদের জীবন যেন সুখকর হয় এবং তারা প্রশান্তি লাভ করে।

সাকিভ ভাট্টি বরিস জনসনের টুইটটি রিটুইট করে লিখেন, ‘ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের আয়োজিত প্রথম ভার্চুয়াল ইফতারে অংশ নিতে পেরে বেশ দারুণ লাগছে। সারাদেশের সম্মুখযোদ্ধা ও স্বেচ্ছাসেবীদের কাছ থেকে তাদের অভিজ্ঞতা এবং রমজান তাদের কাছে কতটুকু গুরুত্ব রাখে— তা শুনে খুব ভালো লেগেছে।

আরও পড়ুন:

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here