হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল হয় শীতের সকালে। দেখা গেছে, অধিকাংশ ক্ষেত্রে হার্ট অ্যাটাকের ঘটনা ঘটে সকালে বাথরুমে গিয়ে। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ, বেশকিছু বিষয় মেনে চললে এই বিপদের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব। 

বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ: 

১। ঘুম ভেঙ্গে হঠাৎ দাঁড়ানো যাবে না। শুধু শীতকাল নয়, সবসময়ের জন্য এই নিয়ম মেনে চলা জরুরী। বিছানা থেকে আস্তে ধীরে উঠতে হবে। অন্তত ৩০ সেকেন্ড পর বিছানা ছাড়তে হবে। যাতে শরীরের রক্ত প্রবাহ স্বাভাবিক হওয়ার সুযোগ পায়। 

২। হঠাৎ বিছানা থেকে নামলে আমাদের মস্তিষ্কের রক্ত প্রবাহ কমে যায়। এ সময় অক্সিজেনের অভাবে হার্ট অ্যাটাক হতে পারে। 

৩। শীতের সময় যেন ঠান্ডা না লাগে সে বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। অফিসের তাড়া বা অন্য কোন জরুরী কাজ থাকলেও ঘুম থেকে সরাসরি বাথরুমে গিয়ে মাথায় ঠান্ডা পানি দেয়া যাবে না। সম্ভব হলে কুসুম গরম পানিতে গোসল করুন। সুযোগ না হলে প্রথমে পায়ে এরপর পর্যায়ক্রমে শরীরের উপরের অংশে পানি ঢালুন। সবশেষ মাথায় পানি ঢালুন। 

৪। শীতের সময় তাপমাত্রা কম থাকায় হৃদযন্ত্রে অক্সিজেনের চাহিদা ও রক্ত সঞ্চালনে পরিবর্তন হয়। কিছুক্ষেত্রে হার্ট পর্যাপ্ত অক্সিজেন পায় না। পাশাপাশি রক্তচাপ, কোলেস্টোরেলসহ নানা সমস্যা দেখা দেয়। তাই সবসময় বিশেষত শীতে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি থেকে বাঁচতে সুস্থ ও নিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন জরুরী। 

৫। উচ্চ রক্তচাপ, হাই কোলেস্টোরেল, ধূমপান ও ওজন নিয়ন্ত্রণসহ সার্বিক বিষয়ে নজর দিতে হবে। ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে, অবসাদ কমাতে হবে, স্বাস্থ্যসম্মত খাবার খেতে হবে। এছাড়া যতটা সম্ভব ধূমপান পরিহার করারও পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here