বিজনেস জার্নাল প্রতিবেদক: ঈদের ছুটির আগে বুধবার লেনদেন হবে দেশের দুই পুঁজিবাজারে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, ৬ মে থেকে ১৬ মে দৈনিক ব্যাংকিং সময়সূচী সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ২ টা পর্যন্ত নির্ধারণ করার প্রেক্ষিতে পুঁজিবাজারে সকাল ১০টা  থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত লেনদেন চলবে। সে হিসেবে বিনিয়োগকারীদের হাতে আছে শুধু একদিন অর্থ্যাৎ বুধবার। এখন প্রশ্ন হলো কি হবে এই একদিনের লাভ-লোকসানের সমীকরণ? কি করবেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা? ঈদের আগে টাকার জন্য হয়ে হাতে থাকা শেয়ার কমদামে ছাড়বেন, না কি লকডাউন আবারও বাড়তে পারে সে চিন্তা করে হাতে নগদ অর্থ সংরক্ষণের আশায় শেয়ার বিক্রি করবেন, না কি প্যানিকড না হয়ে ধৈর্য্যশীলতার সাথে বুদ্ধিমত্ত্বার পরিচয় দিবেন? তবে এটা জেনে রাখা ভালো, যে কারণেই মঙ্গলবার বিনিয়োগকারীরা শেয়ার বিক্রি করেন না কেন, আদতে তা কোন কাজেই আসবে না। কারণ মাত্র একদিনে কোন শেয়ারেরই সেটেলমেন্ট সাইকেল পূর্ণ হয় না। পরিণতিতে ওই শেয়ার বিক্রিতো হবেই, কিন্তু টাকায় রুপ লাভ করবে না।

অর্থনীতি ও শেয়ারবাজারের গুরুত্বপূর্ন সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন: ফেসবুকটুইটারলিংকডইনইন্সটাগ্রামইউটিউব

উল্লিখিত সময়কালে লেনদেন চলাকালে প্রি-ওপেনিং সেশন ৯ টা ৪৫ মিনিট থেকে ১০ টা এবং পোস্ট ক্লোজিং সেশন দেড়টা থেকে ১টা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত চালু থাকবে।

বুধবার লেনদেনের পর ঈদুল ফিতরের তিনদিনের ছুটিতে যাবে পুঁজিবাজার। চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১৪ মে (শুক্রবার) ঈদ হতে পারে।সেই হিসাবে বৃহস্পতি, শুক্র এবং শনিবার ঈদের ছুটি শেষে আবার রোববার থেকে লেনদেন হবে দেশের দুই পুঁজিবাজারে।

ঢাকা/এনইউ

আরও পড়ুন: