করোনাকালে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের উদ্যোগে আয়োজন করা হয়েছে প্রেসিডেন্টস কাপ। সামনে বসবে বঙ্গবন্ধু টি-২০ কাপের আসর। সব ঠিক থাকলে ঘরোয়া নয়, শ্রীলংকার মাঠে আন্তর্জাতিক সিরিজ দিয়ে মাঠে ফিরতে পারতো বাংলাদেশের ক্রিকেট।

কিন্তু অক্টোবরে কোয়ারেন্টাইনের নানান শর্ত দিয়ে সিরিজটি দ্বিতীয় দফা স্থগিতের পথে ঠেলে দেয় শ্রীলংকা। অথচ সেই শ্রীলংকা এখন ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডকে স্বাগত জানাচ্ছে কোয়ারেন্টাইনের শর্ত ছাড়াই।

বিষয়টিকে ‘দ্বিমুখী আচরণ’ হিসেবে দেখছেন বাংলাদেশের ক্রিকেট ভক্তরা। এমনকি সংবাদমাধ্যমও বিষয়টি উঠে এসেছে।

কারণও আছে, বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের এক মাসের পরিশ্রম-ত্যাগের মূল্য দেয়নি লংকান বোর্ড। তবে বিসিবির সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী বিষয়টিকে দ্বিমুখী আচরণ হিসেবে দেখছেন না।

বুধবার তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘বিষয়টি এভাবে দেখলে হবে না। আপনারা হয়তো খেয়াল করেছেন, সবসময় কভিড-১৯  একই রকম থাকছে না। আমরা যখন যেতে চেয়েছিলাম তখনকার চেয়ে হয়তো এখন পরিস্থিতি ভালো হয়েছে। অথবা তাদের পরিকল্পনায় বদল এনেছে।’

বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজটি আয়োজনের ব্যাপারে লংকান ক্রিকেট বোর্ড অনেক চেষ্টা করেছে বলেও উল্লেখ করেন বিসিবির সিইও। তিনি বলেন, ‘আমরা যখন যেতে চেয়েছিলাম, তখন তাদের বোর্ড সরকারের সঙ্গে বেশ ক’বার বৈঠক করেছিল। তাদের সর্বোচ্চ চেষ্টাই ছিল। কিছু কারণে হয়তো তারা সরকারকে বোঝাতে পারেনি। এখন পরিস্থিতি বোর্ডের পক্ষে থাকায় তারা ইংল্যান্ড সিরিজ আয়োজন করছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here