দীর্ঘ আট বছর পর শেয়ারবাজারে আসছে সরকারি কোম্পানি গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানি লিমিটেড (জিটিসিএল)। কোম্পানিটি শেয়ারবাজারে সরাসরি তালিকাভুক্ত হবে। শেয়ারবাজারে আসার জন্য ইস্যু ম্যানেজার নিয়োগ দিয়েছে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্টকে। সম্প্রতি দুটি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে এ জাতীয় একটি চুক্তি সই হয়েছে।

কোম্পানি সূত্র মতে, বর্তমানে কোম্পানিটির অনুমোধিত মূলধন হলো এক হাজার কোটি টাকা। এটিকে বাড়িয়ে অনুমোধিত মূলধন করা হবে ১০ হাজার কোটি টাকা। অন্যদিকে বর্তমানে কোম্পানিটির পরিশোধিত মূলধন হলো ৭০০ কোটি টাকা। এটিকে বাড়িয়ে করা হবে ৪ হাজার কোটি টাকা। তবে সরাসরি তালিকাভুক্ত করার জন্য কত শতাংশ শেয়ার ছাড়া হবে, সেই বিষয়গুলো এখনো চুড়ান্ত করেনি কোম্পানিটি।

অর্থনীতি ও শেয়ারবাজারের গুরুত্বপূর্ন সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন:বিজনেসজার্নালবিজনেসজার্নাল.বিডি

জাতীয় গ্যাস গ্রিড এককেন্দ্রিক পরিচালন ও রক্ষণাবেক্ষণ এবং দেশের সকল অঞ্চলে প্রাকৃতিক গ্যাসের সুষম ব্যবহার নিশ্চিতকল্পে  ১৯৯৩ সালের ১৪ ডিসেম্বর কোম্পানিটির যাত্রা শুরু হয়। প্রথম ব্যবসা শুরু হয় একই বছরের ৩১ জুলাই। প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ কোম্পানিটি জাতীয় গ্যাস গ্রিড পরিচালন ও রক্ষণাবেক্ষণের পাশাপাশি নতুন নতুন এলাকাকে গ্যাস সরবরাহ নেটওয়ার্কের কাজ করছে। বর্তমানে কোম্পানির পরিচালনাধীন জাতীয় গ্যাস গ্রিডভুক্ত পাইপলাইনের দৈর্ঘ্য দাঁড়িয়েছে সর্বমোট ১৫৬০ কিলোমিটার।

কোম্পানি সূত্র মতে, সর্বশেষ (২০১৯-২০২০) মুনাফা করেছে ৩০ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ১৭ কোটি ৮৪ লাখ টাকা।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্টের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শুক্লা দাস সানবিডিকে বলেন, জিটিসিএল শেয়ারবাজারে আসার জন্য আমাদের সাথে চুক্তি করেছে। কোম্পানিটির গুছানোর কাজ চলছে। তারা শেয়ারবাজারে সরাসরি তালিকাভুক্ত হবে।

উল্লেখ, সর্বশেষ ২০১২ সালের ১৪ জুন শেয়ারবাজারে আসে সরকারি কোম্পানি বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবলস লিমিটেড। এর পর সরকারের নানা উদ্যোগের পরও কোন সরকারি কোম্পানি শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হয়নি।

বিজনেসজার্নাল/ঢাকা/এনইউ

 

আরও পড়ুন:

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here