সৌরভের শারীরিক অবস্থা অনেকটাই স্থিতিশীল। করোনা রিপোর্টও নেগেটিভ এসেছে। রক্তচাপ এবং নাড়ির গতিও স্বাভাবিক। বিশ্রামে থাকতে হবে আরও কয়েক সপ্তাহ। তবে কোলেস্টেরল ও থাইরয়েড বাড়তি। চিকিৎসকদের ভাষ্য অনুযায়ী সৌরভ গাঙ্গুলির সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা এমন। তবে চিকিৎসকদের দাবি, ঠিকমতো নিজের খেয়াল রাখেননি সৌরভ। মাত্র ৪৮ বছর বয়সে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়া এবং তিনটি ব্লক ধরা পড়াকে ইতিবাচকভাবে দেখছেন না চিকিৎসকরা। 

বিভিন্ন শারীরিক পরীক্ষার রিপোর্ট দেখে চিকিৎসকরা জানান, সৌরভ এই প্রথম হৃদরোগে আক্রান্ত হলেন বিষয়টা তেমন নয়। এর আগেও একবার মৃদু হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারেন তিনি। হয়তো তখন সেটা বুঝতে পারেননি। এ ছাড়া দীর্ঘদিন নিজের কোনো শারীরিক পরীক্ষাও তিনি করাননি। এ ছাড়া পরিবারের অন্য সদস্যদেরও হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনাও আছে।  সৌরভের বাবা চণ্ডীদাস গঙ্গোপাধ্যায় হৃদরোগে আক্রান্ত ছিলেন। বাইপাস সার্জারিও করতে হয়েছিল তার।

চিকিৎসকরা মনে করছেন, সৌরভের আরও সতর্ক হওয়া উচিত ছিল। অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন আর কাজের চাপে সম্ভবত সেই সময় করে উঠতে পারেননি তিনি। তার উচিত ছিল নিয়মিত চেকআপ করানো। 

এদিকে হার্টের ব্লকেজ সরাতে একটি স্টেন্ট বসানো হয়েছে সৌরভের। আরও ২টি ‘স্টেন্ট’ বসানো হবে কি না, তা নিয়েও চিন্তাভাবনা রয়েছে চিকিৎসকদের। তবে এখনও পর্যন্ত সে ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here