বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে ঢাকা-৭ আসনের সাংসদ হাজি সেলিমের এলাকায় দ্বিতীয় দিনের মতো উচ্ছেদ অভিযান চালাচ্ছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিটিএ)। আজ সোমবার বেলা ১১টা থেকে এই অভিযান শুরু হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএর কর্মকর্তারা জানান, আজ বাবুবাজার ব্রিজসংলগ্ন এলাকা থেকে সোয়ারীঘাট পর্যন্ত নদীর জায়গা দখল করে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা ভেঙে ফেলা হবে।

সরেজমিনে দেখা যায়, বাবুবাজার ব্রিজ থেকে সোয়ারীঘাট পর্যন্ত বেড়িবাঁধ হয়ে যে সড়কটি গেছে, ওই সড়কের উত্তর পাশে গড়ে ওটা স্থাপনাগুলো এক্সকাভেটর দিয়ে ভেঙে ফেলা হচ্ছে। অভিযান শুরুর পর অন্য দখলদারেরা স্বেচ্ছায় তাঁদের স্থাপনা থেকে প্রয়োজনীয় মালামাল সরিয়ে নিচ্ছেন। বিআইডব্লিউটিএর অভিযানের কারণে বেড়িবাঁধ হয়ে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের পাশাপাশি অন্তত হাজারখানেক উৎসুক জনতা অভিযানস্থলে রয়েছেন।

 এই অভিযানে নেতৃত্ব দিচ্ছেন বিআইডব্লিউটিএর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুব জামিল। ঢাকা নদীবন্দরের নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা গুলজার আলী, সহকারী পরিচালক রেজাউল করিমসহ সংস্থাটির অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত আছেন।

সহকারী পরিচালক রেজাউল করিম প্রথম আলোকে বলেন, অভিযান শুরুর পর দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত অন্তত ৩০টি স্থাপনা ভাঙা হয়েছে।

গতকাল ওয়াইজঘাট থেকে বাদামতলী এলাকা পর্যন্ত উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়েছিল। হাজি সেলিমের ঘনিষ্ঠরা বাদামতলী এলাকায় নদীর জায়গায় অবৈধ স্থাপনা গড়ে তুলেছিলেন। গতকালের অভিযানে ১৭০টি স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। এতে উদ্ধার হয় নদীতীরের অন্তত তিন একর জমি।