জেআরসির বৈঠকে জোর দেওয়া হবে তিস্তার পানি বণ্টনে

বিজনেস জার্নাল প্রতিবেদক: জেআরসির মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে তিস্তা নদীর পানি বণ্টন বিষয়ে জোর দেওয়া হবে। এ ছাড়া ২০২৬ সালে গঙ্গার পানি বণ্টন চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর নতুন করে এ নদীর পানি বণ্টন ইস্যুটি প্রাধান্য পাবে। পাশাপাশি কুশিয়ারা, ফেনী, মুন, মুহুরী, খোয়াই, গোমতী, ধরলা, দুধকুমার নদ নিয়ে আলোচনা করা হবে।

অর্থনীতি ও শেয়ারবাজারের গুরুত্বপূর্ন সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন: ফেসবুকটুইটারলিংকডইনইন্সটাগ্রামইউটিউব

আগামী ২৫ আগস্ট বাংলাদেশ ও ভারতের যৌথ নদী কমিশনের (জেআরসি) বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এর আগে আজ মঙ্গলবার ও আগামীকাল বুধবার দিল্লিতে দুই দেশের পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ও যৌথ নদী কমিশনের কর্মকর্তা পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

জেআরসির মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে তিস্তা নদীর পানি বণ্টন বিষয়ে জোর দেওয়া হবে। এ ছাড়া ২০২৬ সালে গঙ্গার পানি বণ্টন চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর নতুন করে এ নদীর পানি বণ্টন ইস্যুটি প্রাধান্য পাবে। পাশাপাশি কুশিয়ারা, ফেনী, মুন, মুহুরী, খোয়াই, গোমতী, ধরলা, দুধকুমার নদ নিয়ে আলোচনা করা হবে। বৈঠকে নদীতীর ব্যবস্থাপনা, বন্যার আগাম তথ্যসহ নদী সংক্রান্ত সব বিষয়েই আলোচনা হবে।

জেআরসি বৈঠকে কোন বিষয় প্রাধান্য পাবে- জানতে চাইলে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেন, এ বৈঠকটি প্রায় ১২ বছর পর হচ্ছে। দুই দেশের মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক হচ্ছে- এটিই একটি ইতিবাচক দিক হিসেবে দেখতে চাই। আর এ বৈঠকের সময়টিও ভালো। কারণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরের আগেই বৈঠকটি হচ্ছে।

তিনি বলেন, নদী বিষয়ে দুই দেশের অনেক ইস্যু রয়েছে। তাঁরা চান ইস্যুগুলো আলোচিত হোক। এবার বন্যার সময় পূর্বাভাসের তথ্য ভারত বাংলাদেশকে দিয়েছিল। এতে বাংলাদেশের লাভ হয়েছে। আগামীতে এটি আরও জোরদার করা নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হবে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে আগামী ৬ সেপ্টেম্বর শেখ হাসিনার ভারত সফরের কথা রয়েছে।

ঢাকা/এসএ