১০:৪৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪

সূচকের উত্থানেও লেনদেন তলানিতে

বিজনেস জার্নাল প্রতিবেদক:
  • আপডেট: ০৩:২৫:৩৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মার্চ ২০২৩
  • / ৪২৫৬ বার দেখা হয়েছে

ফাইল ফটো

ধারাবাহিক ভাবে কমতে থাকা লেনদেন অস্থির পুঁজিবাজারকে আরও অস্থির করে তুলছে। আজ বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) প্রধান মূল্য সূচকের উত্থান হলেও লেনদেন ঠেঁকেছে তলানিতে। এদিন টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ২৮৬ কোটি টাকা। অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচকের সাথে কমেছে লেনদেন। ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

অর্থনীতি ও শেয়ারবাজারের গুরুত্বপূর্ন সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন: ফেসবুকটুইটারলিংকডইনইন্সটাগ্রামইউটিউব

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার ৪৫২ কোটি লেনদেন হয়েছে। এর পর থেকেই প্রতি দিনই লেনদেন কমেছে। গত কাল ৩২৮ কোটি, এর আগের দিন ৩৪৯ কোটি, আর গত সোমবার ৩৪৪ কোটি টাকা লেনদেন হয়েছিল। আজ ডিএসইতে ২৮৬ কোটি ৯৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আজ ডিএসইতে আগের দিন থেকে ৪১ কোটি ৫১ লাখ টাকা কম লেনদেন হয়েছে। এর আগে গত ২৮ ফেব্রুয়ারী ২৬১ কোটি টাকা লেনদেন হয়েছে। গতকাল ডিএসইতে ৩২৮ কোটি ৪৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল।

বিশেষজ্ঞদের মতে, রাজনৈতিক অস্থিরতা, রাশিয়াইউক্রেন যুদ্ধ, বৈশ্বিক অর্থনৈতিক অস্থিরতার হাওয়া পুঁজিবাজারে লেগেছে। কিন্তু এগুলো থেকেও লেনদেন কমার বড় কারণ হচ্ছে ফ্লোর প্রাইস। মূলতঃ ফ্লোর প্রাইস আরোপ করে বাজারকেপঙ্গুকরে দেওয়া হয়েছে। অর্থনৈতিক টানাপোড়েন অবস্থা ধারাকে আরও খারাপ করে তুলেছে

আজ ডিএসইতে ৩০৩টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৭৪টির বা ২৪.৪২ শতাংশ, কমেছে ২৪টির বা ৭.৯২ শতাংশ এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২০৫টির ৬৭.৬৫ বা শতাংশ কোম্পানির।

আরও পড়ুন: বিনিয়োগকারীদের মাঝে আস্থার সংকট চলছে: ড. হাফিজ মুহম্মদ হাসান

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, ডিএসই প্রধান বা ডিএসইএক্স সূচক ১৭ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৬ হাজার ২০৬ পয়েন্টে। অন্য সূচকগুলোর মধ্যে ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ৩ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১ হাজার ৩৫২ পয়েন্টে এবং ডিএস৩০ সূচক ৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ২১৫ পয়েন্টে।

অপরদিকে, সিএসইর প্রধান সূচক সিএএসপিআই ২৫ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ৩৭৪ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে ১২ কোটি ১৫ লাখ টাকা শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা গত কার্যদিবস থেকে ৪ কোটি ১৮ লাখ টাকা বেশি। গত কার্যদিবসে সিএসইতে ৭ কোটি ৯৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল।

সিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া হওয়া ১১৫টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ৪২টি, কমেছে ৮টি এবং অপরিবর্তিত ছিল ৬৫টির।

ঢাকা/এসএ

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

x
English Version

সূচকের উত্থানেও লেনদেন তলানিতে

আপডেট: ০৩:২৫:৩৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মার্চ ২০২৩

ধারাবাহিক ভাবে কমতে থাকা লেনদেন অস্থির পুঁজিবাজারকে আরও অস্থির করে তুলছে। আজ বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) প্রধান মূল্য সূচকের উত্থান হলেও লেনদেন ঠেঁকেছে তলানিতে। এদিন টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ২৮৬ কোটি টাকা। অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচকের সাথে কমেছে লেনদেন। ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

অর্থনীতি ও শেয়ারবাজারের গুরুত্বপূর্ন সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন: ফেসবুকটুইটারলিংকডইনইন্সটাগ্রামইউটিউব

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার ৪৫২ কোটি লেনদেন হয়েছে। এর পর থেকেই প্রতি দিনই লেনদেন কমেছে। গত কাল ৩২৮ কোটি, এর আগের দিন ৩৪৯ কোটি, আর গত সোমবার ৩৪৪ কোটি টাকা লেনদেন হয়েছিল। আজ ডিএসইতে ২৮৬ কোটি ৯৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আজ ডিএসইতে আগের দিন থেকে ৪১ কোটি ৫১ লাখ টাকা কম লেনদেন হয়েছে। এর আগে গত ২৮ ফেব্রুয়ারী ২৬১ কোটি টাকা লেনদেন হয়েছে। গতকাল ডিএসইতে ৩২৮ কোটি ৪৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল।

বিশেষজ্ঞদের মতে, রাজনৈতিক অস্থিরতা, রাশিয়াইউক্রেন যুদ্ধ, বৈশ্বিক অর্থনৈতিক অস্থিরতার হাওয়া পুঁজিবাজারে লেগেছে। কিন্তু এগুলো থেকেও লেনদেন কমার বড় কারণ হচ্ছে ফ্লোর প্রাইস। মূলতঃ ফ্লোর প্রাইস আরোপ করে বাজারকেপঙ্গুকরে দেওয়া হয়েছে। অর্থনৈতিক টানাপোড়েন অবস্থা ধারাকে আরও খারাপ করে তুলেছে

আজ ডিএসইতে ৩০৩টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৭৪টির বা ২৪.৪২ শতাংশ, কমেছে ২৪টির বা ৭.৯২ শতাংশ এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২০৫টির ৬৭.৬৫ বা শতাংশ কোম্পানির।

আরও পড়ুন: বিনিয়োগকারীদের মাঝে আস্থার সংকট চলছে: ড. হাফিজ মুহম্মদ হাসান

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, ডিএসই প্রধান বা ডিএসইএক্স সূচক ১৭ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৬ হাজার ২০৬ পয়েন্টে। অন্য সূচকগুলোর মধ্যে ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ৩ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১ হাজার ৩৫২ পয়েন্টে এবং ডিএস৩০ সূচক ৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ২১৫ পয়েন্টে।

অপরদিকে, সিএসইর প্রধান সূচক সিএএসপিআই ২৫ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ৩৭৪ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে ১২ কোটি ১৫ লাখ টাকা শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা গত কার্যদিবস থেকে ৪ কোটি ১৮ লাখ টাকা বেশি। গত কার্যদিবসে সিএসইতে ৭ কোটি ৯৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল।

সিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া হওয়া ১১৫টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ৪২টি, কমেছে ৮টি এবং অপরিবর্তিত ছিল ৬৫টির।

ঢাকা/এসএ

Print Friendly, PDF & Email