অজয় দেবগনের শততম ছবি ‘তানহাজি: দ্য আন সাং ওয়ারিয়র’ গেল বুধবার মুক্তির ষষ্ঠ দিনে প্রবেশ করল শতকোটির ঘরে। সাইফ আলী খান আর কাজলও আছেন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে। এর আগে ২০১৩ সালে সাইফ আলী খান অভিনীত ‘রেস’ ছবিটি গিয়েছিল ১০০ কোটির ক্লাবে। অন্যদিকে অজয় দেবগণ অভিনীত এটি টানা পঞ্চম ছবি, যেটি ১০০ কোটির মাইলফলক পার করেছে। ২০২০ সালে মুক্তি পাওয়া প্রথম ছবি ‘তানহাজি’, যেটি ১০০ কোটি রুপি আয় করল। বুধবার বেলা ৩টায় বলিউডের বক্স অফিস বিশ্লেষক তরণ আদর্শ টুইটারে একটি পোস্টের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

‘তানহাজি: দ্য আন সাং ওয়ারিয়র’ ছবিটি ১৬৭০ সালে মোগল সাম্রাজ্যের সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের ওপর নির্মিত। এখানে তিনি হয়েছেন মারাঠি তানহাজি মালুসারি। আর তাঁর স্ত্রী সাবিত্রী মালুসারির ভূমিকায় দেখা যাবে বাস্তবের স্ত্রী কাজলকে। এই ছবির মধ্য দিয়ে ১২ বছর পর আবারও পর্দা ভাগ করেছেন অজয় দেবগন ও সাইফ আলী খান।

ভারতের ইতিহাসে সবচেয়ে সাহসী যোদ্ধাদের একজন তানহাজি। কিন্তু ইতিহাসে তাঁর নাম সেভাবে উচ্চারিত হয়নি। তাই বলিউড নতুন করে লিখছে তানহাজির ইতিহাস। সপ্তদশ শতাব্দীতে মোগল সম্রাট আওরঙ্গজেব মোগল সম্রাজের পরিধি বাড়াতে দক্ষিণ ভারত দখল করার নির্দেশ দেন। বড় পর্দায় দেখা গেছে, মোগলদের পক্ষ থেকে রাজপুত অফিসার উদয় ভানরূপী সাইফ আলী খান সেই যুদ্ধের নেতৃত্ব দেবেন। যুদ্ধটি ‘ব্যাটল অব সিংহাগাদ’ নামে পরিচিত।

এই যুদ্ধেই নির্ধারিত হয় দক্ষিণ ভারতের ভাগ্য। আর এই যুদ্ধে অসীম সাহসিকতার পরিচয় দেন মারাঠি সম্রাট শিবাজী মহারাজের সেনাপতি তানহাজি মালুসারি, বড় পর্দায় অজয় দেবগণ। ১৫০ কোটি রুপি খরচ করে বানানো এই ছবিটি পরিচালনা করেছেন ওম রউত। গুণী অভিনেতা পঙ্কজ ত্রিপাঠীকেও দেখা গেছে গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে, রাজা জয় সিংয়ের ভূমিকায়।

০এর আগে অজয় দেবগণের ‘দে দে প্যায়ার দে’ (২০১৯), ‘টোটাল ধামাল’ (২০১৯), ‘রেইড’ (২০১৮), ‘গোলমাল এগেইন’ (২০১৭) প্রতিটি ছবিই আয় করেছে ১০০ কোটি রুপির বেশি। এর ভেতর ‘গোলমাল এগেইন’ প্রথম চার দিনে ১০০ কোটি রুপির বেশি আয় করেছে। আর ৩১১ কোটি আয় করে গড়েছে রেকর্ড।

হিন্দি ভাষার ‘তানহাজি’ ১০ জানুয়ারি ভারতের ৩ হাজার ৮৮০টি হলে মুক্তি দেওয়া হয়। তা ছাড়া এই ছবিটি মারাঠি ভাষায় মুক্তি পায় ৬৬০টি হলে। একই দিনে মুক্তি পায় দীপিকা পাড়ুকোনের ‘ছপাক’। ছবিটি প্রত্যাশার তুলনায় পিছিয়েই আছে বলতে হবে। ৬ দিনে ছবিটি আয় করেছে মাত্র ৩৫ কোটি রুপি।হিন্দি ভাষার ‘তানহাজি’ ১০ জানুয়ারি ভারতের ৩ হাজার ৮৮০টি হলে মুক্তি দেওয়া হয়। তা ছাড়া এই ছবিটি মারাঠি ভাষায় মুক্তি পায় ৬৬০টি হলে। একই দিনে মুক্তি পায় দীপিকা পাড়ুকোনের ‘ছপাক’। ছবিটি প্রত্যাশার তুলনায় পিছিয়েই আছে বলতে হবে। ৬ দিনে ছবিটি আয় করেছে মাত্র ৩৫ কোটি রুপি।