দেশে এখন অপরাধ বাড়ছে এবং সাইবার অপরাধ বড় চ্যালেঞ্জ বলে জানিয়েছন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

তিনি বলেন, দেশে অপরাধ নানাভাবে ডালপালা ছড়াচ্ছে। বিশেষ করে সাইবার ক্রাইম বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে গড়ে তুলতে বিভিন্ন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার (০৭ জানুয়ারি) দুপুরে গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার কঞ্চিপাড়া ইউনিয়নের বালাসীঘাটে চর এলাকার আট হাজার শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন তিনি।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে ঘোষিত ‘র‌্যাব সেবা সপ্তাহ’ উপলক্ষে রংপুরে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান-১৩ তে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, র‌্যাব প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে জঙ্গি, সন্ত্রাসী, সংঘবদ্ধ অপরাধী, মাদক কারবারিসহ ধর্ষণ, চাঁদাবাজি, ইয়াবা সন্ত্রাসীর মতো অপরাধীদের গ্রেপ্তার করে সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জন করেছে। সবকিছুতে র‌্যাব সফল হয়ে জনগণের হৃদয়ে স্থান নিয়েছে। র‌্যাবের উপর্যুপরি অভিযানের ফলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সুন্দরবনকে জলদস্যুমুক্ত ঘোষণা করেছেন।

তিনি বলেন, র‌্যাব শুধু প্রশাসনিক নয়, রাতের আঁধারে জনগণের পাশে গিয়ে কাজ করছে, যেটা বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন। অসহায় ও শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ করছে। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে গিয়েও শীতার্ত মানুষকে উষ্ণতার পরশ দিচ্ছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৫ সালে রাজারবাগ গিয়ে পুলিশ বাহিনীকে বলেছিলেন, তোমরা পাকিস্তানি কিংবা ব্রিটিশ পুলিশ নয়, তোমাদের জনগণের পুলিশ হতে হবে। জনগণের পাশে থেকে কাজ করতে হবে। জাতির পিতার নির্দেশে পুলিশ বাহিনী আজ জনগণের আস্থার জায়গায় পৌঁছাতে পেরেছে। পুলিশ কাজ করছে বলে দুর্বার গতিতে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। পুলিশ, র‌্যাবসহ অন্যান্য বাহিনী আমাদের নিরাপত্তা না দিলে সবকিছু মুখ থুবরে পড়ত।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনা ভাইরাস মহামারি মোকাবিলাকে সব্বোর্চ গুরুত্ব দিয়েছেন। করোনার কারণে সারাবিশ্বের অর্থনীতি যখন স্থবির হয়ে পড়েছে, বাংলাদেশ সেখানে ব্যতিক্রম দেশ। তাই বিশ্বে করোনা মোকাবিলায় সক্ষমতার দিক থেকে বাংলাদেশ ২০তম অবস্থানে রয়েছে। করোনার কারণে কৃষকরা যখন ধান কাটতে অসুবিধায় পড়েছে, সেই সময় প্রধানমন্ত্রীর ডাকে ছাত্রলীগ, কৃষকলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, পুলিশ বাহিনীসহ সকলে সাড়া দিয়ে কৃষকের জমির ধান কেটে দিয়েছে।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন- র‌্যাবের মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল- মামুন, জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়া, হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি, উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপি, রংপুর রেঞ্জ পুলিশের ডিআইজি, র‌্যাব-১৩-এর অধিনায়ক, গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সরকারি কর্মকর্তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here